‘আমাদের সময়’ কার, রায় মঙ্গলবার

প্রকাশিত: ২:২৯ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২, ২০১৬

‘দৈনিক আমাদের সময়ের’ প্রকাশনা নিয়ে নাঈমুল ইসলাম খানের করা আপিল আবেদনের শুনানি রায় ঘোষণার জন্য মঙ্গলবার দিন ধার্য করেছে আদালত।

সোমবার আপিল বিভাগের জেষ্ঠ্য বিচারপতি আবদুল ওয়াহাব মিয়ার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন।

বেঞ্চর অপর তিন বিচারপতি হলেন- বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি ইমান আলী ও বিচারপতি নিজামুল হক।

প্রকাশক সৈয়দ মোহাইমেন বক্স কল্লোলের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রফিকুল হক, ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ, অ্যাডভোকেট শরীফ উদ্দিন চাকলাদার ও ব্যারিস্টার এহসানুল করিম।

নাঈমুল ইসলামের পক্ষে শুনানি করেন জেষ্ঠ্য আইনজীবী টিএইচ খান ও ব্যারিস্টার আকতার ইমাম।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

‘আমাদের সময়ের’ প্রকাশক সৈয়দ মোহাইমেন বক্স কল্লোল বলেন, ২০১২ সালে হাইকোর্ট রুল নিষ্পত্তি করে রায় ঘোষণা করেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের সিভিল পিটিশন (সিপি) করেন নাঈমুল ইসলাম খান।

ওই আবেদনের শুনানি গত ১৭ জুলাই থেকে অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার শুনানি শেষ হলে রায় ঘোষণার জন্য মঙ্গলবার দিন ধার্য করেন।

‘আমাদের সময়ের’ বর্তমান মালিক ইউনিক গ্রুপ। পত্রিকাটির সম্পাদক করা হয়েছে ইউনিক গ্রুপের চিফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার মো. গোলাম সারোয়ারকে।প্রকাশক সৈয়দ মোহাইমেন বক্স কল্লোল।

২০১২ সালের ৮ আগস্ট নাঈমুল ইসলাম খানের রিট আবেদন খারিজ করে দেয় হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চ। প্রকাশক হিসেবে সৈয়দ মোহাইমেন বক্স কল্লোলের এ পত্রিকা প্রকাশের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়।

রায়ে ‘আমাদের সময়ের’ প্রকাশনা নিয়ে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের আদেশই  ‘সঠিক’ ছিল বলে উল্লেখ করা হয়।

আদালত সূত্র জানায়, ২০১১ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের (জেলা প্রশাসক) দেয়া এক আদেশ অনুযায়ী এসএম কল্লোল ‘আমাদের সময়ের’ প্রকাশক হিসেবে দায়িত্ব নেন।

ওই আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে নাঈমুল ইসলাম খান একটি রিট আবেদন করলে হাইকোর্ট ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি তা স্থগিত করে দেন।

একই সঙ্গে হাইকোর্ট নাঈমুল ইসলাম খানকে বাদ দিয়ে কল্লোলকে ‘আমাদের সময়ের’ প্রকাশক করার আদেশ কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

আদালতের ওই আদেশের পর ওই বছরের ১৭ জানুয়ারি আবারো নাঈমুল ইসলাম খানের প্রকাশনায় ‘আমাদের সময়’ প্রকাশিত হতে থাকে।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট