সাংবাদিককে মারধর : এমপি রনির বিচার শুরু

প্রকাশিত: ৩:৩৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০১৬

সাংবাদিক পেটানোর মামলায় আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনির বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছে আদালত।

ঢাকার মহানগর হাকিম স্নিগ্ধা রানী চক্রবর্তী বৃহস্পতিবার অভিযোগ গঠন করে এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর জন্য ২০ অক্টোবর দিন ঠিক করে দেন।

আসামি রনির পক্ষে মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন করা হলেও তা নাকচ করেন বিচারক।

রনির পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী কবির হোসেন, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন তাছলিমা ইয়াসমিন দীপা।

২০১৩ সালের ২০ জুলাই পটুয়াখালীর তখনকার এমপি গোলাম মাওলা রনি ঢাকার তোপখানা রোডের মেহেরাব প্লাজায় নিজের অফিসে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের সাংবাদিক ইমতিয়াজ সনি ও চিত্রগ্রাহক মহসিন মুকুলকে মারধর করে আটকে রাখেন বলে এ মামলার অভিযোগ।

ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের সহকারী ব্যবস্থাপক ইউনুস আলী ওইদিনই শাহবাগ থানায় রনির বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করেন।

পরদিন ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে আত্মসমর্পণ করলে আদালত ৫ হাজার টাকা মুচলেকায় রনির জামিন মঞ্জুর করে। পরে ২৪ জুলাই মুখ্য মহানগর আদালত ওই জামিন আদেশ বাতিল করলে সেদিনই রনিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

২৫ জুলাই আদালতে হাজির করার পর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে বিচারক রনিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ওই বছর ১০ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট থেকে জামিন পান রনি।

শাহবাগ থানার এসআই আবু জাফর ২০১৪ সালের ২৬ জুন রনির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

হাকিম আদালতের জামিন আদেশ ‘অবৈধভাবে বাতিল করা হয়েছে’ দাবি করে রনি ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে একটি রিভিশন মামলা দায়ের করলে সাংবাদিক পেটানোর মামলাটির কার্যক্রম স্থগিত হয়ে যায়।

গতবছর মহানগর দায়রা জজ আদালতে ওই রিভিশন আবেদন খারিজ হয়ে যাওয়ার পর বৃহস্পতিবার মহানগর হাকিম আদালতে রনির ‍বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।

একই ঘটনায় রনি ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের অন্যতম মালিক ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমানের বিরুদ্ধে ‘অপহরণচেষ্টা’র মামলা করলেও পুলিশ চূড়ান্ত প্রতিবেদনে দেওয়ায় আদালত সালমান এফ রহমানকে অব্যাহতি দেয়।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট