হান্নান শাহ’র সন্দেহ ,কল্যাণপুরে নিহত ৯ জন আসলেই কি জঙ্গি ছিল!

প্রকাশিত: ৬:৪৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০১৬

রাজধানীর কল্যাণপুরে পুলিশের গুলিতে নিহত ৯ জন আসলেই জঙ্গি ছিল কিনা তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ।

এঘটনার সমালোচনা করে তিনি বলেন, গুলশানে ৬ জন সশস্ত্র জঙ্গির মোকাবেলা করার সাহস পায়নি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। অথচ আজ পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধ ও ক্রসফায়ারে ৯ জঙ্গি নিহত হয়েছে। তাই বন্ধুকযুদ্ধ ও ক্রসফায়ারের কথা শুনলে জনগণের মনে প্রশ্ন জাগে, তারা কি সত্যি অপরাধী ছিল, না কি সাধারণ মানুষকে হত্যা করা হয়েছে?

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ সব কথা বলেন।

‘ন্যাপ ভাসানীর ৫৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী’ শীর্ষক এ সভায় তিনি বলেন, তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, ‘এমপিরা চোর’। আর তথ্যমন্ত্রীর একথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও পরোক্ষভাবে স্বীকার করেছেন। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, হাসানুল হক ইনু ও জনগণের কথা আপনাকে শুনতে হবে না। আপনি আপনার পিতার কথা স্মরণ করুন। তিনিও (বঙ্গবন্ধু) বলেছিলেন, সবাই পায় সোনার খনি, আমি পেয়েছি চোরের খনি।

অর্থ পাচার মামলায় তারেক রহমানের সাজা প্রসঙ্গে হান্নান শাহ বলেন, মুদ্রা পাচারের সঙ্গে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের কোনো সম্পৃক্তা ছিল না। বাংলাদেশ থেকে গিয়াস উদ্দিন মামুনকে টাকা পাঠিয়েছিলেন খাদেজা ইসলাম। আর মামুনের কাছ থেকে তারেক রহমান টাকা নিয়েছিলেন সংসারের খরচের জন্য। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, যিনি (খাদেজা ইসলাম) টাকা পাঠিয়েছিলেন তাকে কেনো গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না?

বর্তমান দেশের পরিস্থতি পর্যালোচনায় বিএনপির এই নেতা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, সরকারের কর্মকাণ্ড ও বর্তমান দেশের পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে, বাংলাদেশ কি কাশ্মীর নাকি সিকিমের দিকে যাচ্ছে।

তার এ বক্তব্যের জবাবে উপস্থিত নেতাকর্মীরা বলেন, ‘বাংলাদেশ সিকিমের দিকে যাচ্ছে।’

প্রতিবেশী দেশের উদ্দেশে হান্নান শাহ বলেন, ভিন্ন দেশ এসে বাংলাদেশ কব্জা করবে, আর আমরা সেটা বসে বসে দেখবো। এটা ভাবলে ভুল হবে। কারণ এখনো বুড়ো হইনি। এক রাউন্ড গুলি হলেও ফায়ার করবো।

ক্ষমতাসীনদের অপরাধের জন্য জনতার আদালতে সরকারের বিচার কার্য শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

আয়োজক সংগঠনের চেয়ারম্যান মো. আজহারুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

  •