বড়লেখায় শ্যালিকা অপহরণ মামলায় কারাগারে দুলাভাই

প্রকাশিত: ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০১৬

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় শ্যালিকা অপহরণ মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত পলাতক আসামী দুলাভাই আব্দুল কুদ্দুছকে বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে। সে পৌরশহরের গাজিটেকা আইলাপুরের আব্দুল মালেকের ছেলে।

থানা পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২ ফেব্রুয়ারি আব্দুল কুদ্দুছ (৩৫) শ্বশুড় বাড়িতে গিয়ে শিশু সন্তান অসুস্থ জানিয়ে কিশোরী শ্যালিকাকে নিজ বাড়িতে নেয়ার কথা বলে। সরল বিশ্বাসে শ্বশুড়-শ্বাশুড়ি মেয়েকে জামাতার সাথে দেন। কিন্তু দুলাভাই কুদ্দুছ শ্যালিকাকে (১৪) বাড়িতে না নিয়ে জুসের সাথে নেশাদ্রব্য মিশিয়ে সুনামগঞ্জের বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে আটক রেখে পাশবিক নির্যাতন চালায়।

এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা অপহরণ ও পাশবিক নির্যাতনের অভিযোগে জামাতা আব্দুল কুদ্দুছকে আসামী করে নারি ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। অপহরণের চারদিন পর এ মামলায় পুলিশ সুনামগঞ্জের বন্ধুর বাড়ি থেকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় অপহৃতাকে উদ্ধার ও লম্পট দুলাভাই আব্দুল কুদ্দুছকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। ছয় মাস পর জামিনে বেরিয়ে সে পালিয়ে যায়।

বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান জানান, আপন কিশোরী শ্যালিকাকে অপহরণ করে পাশবিক নির্যাতনের মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত পলাতক আসামী আব্দুল কুদ্দুছকে শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট