আপনি যে মধু খাচ্ছেন তা কি খাঁটি? সহজেই জেনে নিন

প্রকাশিত: ৪:০৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৩, ২০১৬

মধুর উপকারিতার কথা জানেন অনেকেই। অনেকেই নিয়মিত মধু সেবনও করেন শরীরকে নীরোগ রাখার লক্ষ্যে। কিন্তু জানেন কি, বাজার থেকে যে মধু আপনি কিনে আনছেন তা অনেক সময়েই খাঁটি নয়, বরং তাতে মেশানো থাকে নানা ক্ষতিকর রাসায়নিক? এমনকি বৈজ্ঞানিক পরীক্ষায় দেখা গেছে, বাজারে যে শিশি-বন্দি মধু বিক্রি করা হয় তাতে অনেক সময়েই প্লাস্টার বা ভাতের মাড়-এর মতো উপাদান মেশানো হয় অতিরিক্ত লাভের আশায়। এই ধরনের ভেজাল মিশ্রিত মধু সেবনে শরীরের কোনো উপকার তো হয়ই না, বরং ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।
তাহলে যে মধু আপনি কিনে আনছেন তা খাঁটি কি না বুঝবেন কীভাবে? বোঝার কয়েকটি সহজ উপায় রয়েছে। জেনে নিন—
১. আপনার কেনা মধু কি শিশির ভিতরে জমে যাচ্ছে? তাহলে সেই মধুতে ভেজাল রয়েছে। কারণ বিশুদ্ধ মধু কেবল ফ্রিজে রাখা থাকলে তবেই জমবে।
২. মধুর শিশির গায়ের লেবেলটি ভালো করে পড়ুন। কী কী উপাদান দিয়ে এই মধু তৈরি, তা দেখুন। যদি দেখেন কৃত্রিম গ্লুকোজ-এর উল্লেখ রয়েছে, তাহলে বুঝবেন, এই মধু খাঁটি নয়।
৩. এক গ্লাস পানিতে এক চামচ আয়োডাইজড নুন গুলে নিন। তারপর তাতে মেশান এক চামচ মধু। যদি মধুর রং নীল হয়ে যায় তাহলে বুঝবেন মধুতে ভাতের মাড় মেশানো রয়েছে।
৪. এক গ্লাস পানিতে এক চামচ মধু গুলে নিন। এবার তাতে কয়েক ফোঁটা ভিনিগার মেশান। যদি দেখেন মিশ্রণটিতে ফেনা তৈরি হচ্ছে তাহলে নিশ্চিৎ হতে পারেন, মধুতে প্লাস্টার মেশানো রয়েছে।
৫. এক চামচ মধুতে একটি জ্বলন্ত দেশলাই ধরুন। যদি মধু জ্বলে ওঠে তাহলে ওটি বিশুদ্ধ মধু।
৬. এক চামচ মধু এক গ্লাসের ভিতর ডুবিয়ে দিন। যদি চামচ ডোবানোর সঙ্গে সঙ্গে তা থেকে মধু একটু একটু করে পানিতে মিশে যেতে থাকে তাহলে ওটি ভেজাল মিশ্রিত মধু।
  •