কাশ্মীর নিয়ে গোয়েন্দা প্রধান ও নিরাপত্তা উপদেষ্টার সঙ্গে অমিতের বৈঠকে

আন্তর্জাতিক

জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল এবং গোয়েন্দা ব্যুরোর প্রধানের সঙ্গে আলোচনা করতে সাক্ষাৎ করেছেন দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ধাপে ধাপে সেখানকার নিরাপত্তা বেষ্টনী তুলে দেয়া শুরু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তা নিয়েই সোমবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে বৈঠকে বসেন অমিত শাহ।

দু সপ্তাহ আগে, জম্মু ও কাশ্মীরকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করা এবং বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা প্রত্যাহার করার আগে থেকেই সেখানে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়। কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সেখানে এই ধরণের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানায় দেশটির সরকার।

মোদী সরকার এই নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে একটি প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসাবে অভিহিত করেছে, যার অর্থ সেখানে এমন কোনও প্রতিক্রিয়া রয়েছে যাতে প্রাণ ও সম্পত্তির ক্ষতি হতে পারে। তাদের অপসারণ স্থল পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে স্থানীয় প্রশাসন পরিচালনা করবে।

আজ শ্রীনগরে স্কুল এবং সমস্ত সরকারী অফিস খোলা হয়েছে। কর্মকর্তারা দাবি করেছেন যে, কাশ্মীর উপত্যকায় দুই তৃতীয়াংশ ল্যান্ডলাইন পুনরুদ্ধার করা হয়েছে এবং সুরক্ষা পরিস্থিতি পর্যালোচনা শেষে মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা ফিরে আসবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললেও সেখানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি অত্যন্ত নগণ্য, নিরাপত্তার আতঙ্কেই অভিভাবকরা তাদের সন্তানকে স্কুলে পাঠাচ্ছে না।

তবে, গ্রেপ্তার হওয়া প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতিসহ কয়েকশ রাজনীতিবিদ এখনও হেফাজতে রয়েছেন। বৃহত্তর জমায়েতের নিষেধাজ্ঞা আদেশ এখনও অনেক জায়গায় বিদ্যমান। বিষয়টি এখন সুপ্রিম কোর্টে, যেখানে ছয়টি আবেদনের বিচারাধীন রয়েছে।

গত সপ্তাহে অবিলম্বে কাশ্মীরের লকডাউন বন্ধে সমাপ্তির আবেদন করা হয়েছিল। মামলাটি দু-সপ্তাহের জন্য স্থগিত করার আগে মামলার জবাবে আদালত বলেছিল, ‘আমরা স্বাভাবিকতা প্রত্যাশা করি। তবে, রাতারাতি কিছুই করা যায় না। কী হচ্ছে তা কেউ জানে না। প্রত্যেককে সরকারের ওপর নির্ভর করতে হবে … এটি একটি সংবেদনশীল বিষয়।

Leave a Reply