সিলেটে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

সিলেট বিভাগ

সিলেট শহরতলীর আখালিয়াঘাট নতুন বাজার এলাকায় ফরিদা পারভীন মনি (২২) নামে এক গৃবধূকে পিটিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় স্বামী রুবেল আহমদকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার রাত ১০টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত ফরিদা পারভীন মনি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার রাজনগর গ্রামের আব্দুল মতিনের মেয়ে। এ ঘটনায় তার স্বামী রুবেল আহমদকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ। রুবেল সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারের দুলন মিয়ার ছেলে।

সূত্র জানায়, প্রায় দেড় বছর আগে ফরিদাকে বিয়ে করে রুবেল। এরপর থেকেই তাদের মধ্যে নানা কারণে দাম্পত্য কলহ লেগেই ছিল। বুধবার রাতের কোনো এক সময় সে স্ত্রীকে পিটিয়ে শ্বাসরূদ্ধ করে হত্যা করে।

হত্যার পর আত্মহত্যার নাটক সাজাতে স্ত্রীর মরদেহ বাথরুমে ঝুলিয়ে রাখে। পরে রুবেলসহ পরিবারের লোকজন মিলে মরদেহ সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

ফরিদা পারভীন মনির চাচা সুজন মিয়া বলেন, যৌতুকের জন্য প্রায়ই মনিকে মারধর করতেন রুবেল। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাবা-মার সাথে ফোনে কথা বলে মনি। কিন্তু রাত ১১টার দিকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে আমরা জানতে পারি, মনি মারা গেছে। হাসপাতালে গিয়ে মনির নিথর দেহ দেখতে পাই আমরা। গলায় ওড়না পেঁচিয়ে তাকে হত্যা করেছে রুবেল।

খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে ওই গৃহবধূর মরদেহ ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এ বিষয়ে জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওকিল উদ্দিন আহমদ বলেন, ‘রুবেলের পরিবারের লোকজনের দাবি ফরিদা পারভীন বাথরুমে আত্মহত্যা করেছেন। কিন্তু সুরতহাল প্রতিবেদনে মরদেহে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।’

‘তাকে নির্যাতনের পর শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে মরদেহ ঝুলিয়ে রাখে, আবার নিজেরাই উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় আটক রুবেল আহমদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে এবং মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

  •  
  •  

Leave a Reply