দুর্দান্ত খেলে পাকিস্তানকে ৪১ রানে হারালো অস্ট্রেলিয়া

খেলার খবর

পাকিস্তানের বিধংসী বোলার আমিরে খেই হারিয়ে ফেলা অস্ট্রেলিয়া শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানকেই পরাজয়ের স্বাদ দিলো। বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তারা সরফরাজবাহিনীকে হারালো ৪১ রানে।

অজি তারকা ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চ যেভাবে ব্যাট করছিলেন তাতে মনে হচ্ছিলো পাকিস্তানের সামনে রানের পাহাড়ই গড়তে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায় শেষমেশ সেরকম কিছু হল না। অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের শেষ দিকে জ্বলে ওঠেন পাকিস্তানের বোলাররা। তাতে ৪৯ ওভারে ৩০৭ রান করেই অল আউট হয়ে যায় অ্যারন ফিঞ্চের দল।

গতকাল উইকেটের সুবিধা পেতে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। কিন্তু সেই সুবিধা শুরুর দিকে মোটেও কাজে লাগাতে পারেননি তার বোলাররা। উল্টো মিস ফিল্ডিং, ক্যাচ মিসের মহড়া দিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে বড় রানের সুযোগ করে দেয় তারা।

তবে শুরু থেকেই ব্যতিক্রম ছিলেন মোহাম্মদ আমির। অজি ব্যাটসম্যানদের চাপে রাখেন এই পেসার। মূলত তার বোলিংয়েই কিছুটা লাগাম পায় অস্ট্রেলিয়ার রান। ১০ ওভার বল করে ৩০ রানের খরচায় তুলে নেন ৫ উইকেট। অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস বলতে ডেভিড ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি ও ফিঞ্চের মারমুখী ব্যাটিং। এই দুইজনের ব্যাটে বড় রানের স্বপ্ন দেখছিল অস্ট্রেলিয়া। ওপেনিং জুটিতে ১৪৬ রান তুলে ফেলে তারা।

এরপরই আউট হয়ে যান ফিঞ্চ। তার আগে ৪টি ছক্কা ও ৬টি চারে সাজিয়ে ৮২ রান করেন তিনি। ফিঞ্চের বিদায়ের পর মারমুখী হয়ে ওঠেন ওয়ার্নারও। ১১১ বলে ১০৭ রান করে আউট হন তিনি। তার আগে অবশ্য স্টিভেন স্মিথ (১০) ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের (২০) উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া।

জবাবে পাকিস্তান ব্যাটিংয়ে নেমে অস্ট্রেলিয়ান বোলারদের চাপে পড়ে। শুরুতেই ওপেনার ফকরজামানকে হারায়। চাপ কাটিয়ে ওঠার আগেই দলের ৫৬ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেটে বাবর আজমকে হারিয়ে খাদের কিনারে পড়ে যায় পাকিস্তান। আরেক ওপেনার ইমামুল হক ৭৫ বলে ৫৩ রান করে বিদায় নেয়ার পর মুহম্মদ হাফিজও ফিরে যান সাঁজ ঘরে। তিনি দলকে দিয়ে গেছেন ৪৯ বলে ৪৬ রান। তবে অধিনায়ক সরফরাজ বোলার ওহাব রিয়াজকে সঙ্গী করে ধৈর্যশীল ব্যাটিংয়ে রানের পুঁজি ক্রমাগত বাড়াতে থাকেন। দলের ২০০ রানের মধ্যে সাত সাতটি উইকেটের পতনের পর দুই ব্যাটসম্যান ৬৪ রান যোগ করেন। ৪৪.২ ওভারে স্টার্কের বল মোকাবেলা করতে গিয়ে ৪৫ রান করে তাবুতে ফিরে যান ওহাব রিয়াজ। তার জায়গায় আমির নামলেও ২ বল খেলে স্টার্কের হাতেই বিদায় ঘণ্টা বাজে তার। এরপর আর রানের দেখা পায়নি পাকিস্তান। শেষ উইকেটের পতন ঘটে অধিনায়ক সরফরাজের রান আউটের মধ্য দিয়ে। তিনি করেছেন ৪৮ বলে ৪০ রান।

Leave a Reply