হযরত শাহজালাল(র.) দরগাহ চত্বরে চিরনিদ্রায় শায়িত নাট্যজন জহির খান লায়েক

সিলেট বিভাগ

১৪ জানুয়ারি ২০১৯, সোমবার : হযরত শাহজালাল(র.) দরগাহ গোরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন নাট্যজন জহির খান লায়েক। রবিবার বাদ যোহর দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহ.) দরগাহ মসজিদে নামাজে জানাজাশেষে দরগাহ চত্বরে মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।
এর আগে রবিবার বেলা ১১.৪৫ মিনিটে সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে তাঁর লাশবাহী গাড়ি এসে পৌঁছায়। সকলের চোখে-মুখে ছিল ভালোবাসার অশ্রু আর কান্না। প্রিয় মানুষটিকে প্রত্যেকে একে একে শেষবারের মতো দেখেন। প্রায় ৪০ মিনিট সময় শহিদ মিনারে অবস্থানকালে বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের আগমনে শহিদমিনার প্রাঙ্গণ লোকারণ্য হয়ে উঠে।

তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ও শোকাহত মানুষের উদ্দেশ্যে সম্মিলিত নাট্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্তের পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত শোক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমেদ কামরান, মুক্তিযোদ্ধা-নাট্যজন নিজাম উদ্দিন লস্কর, বিশিষ্ট সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিম, মেট্রোপলিটন পুলিশের ডি.সি কামরুল আমিন, ক্রীড়া সংগঠক ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক বিজিত চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সুজাত আলী রফিক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আমিরুল ইসলাম লিটন, সম্মিলিত নাট্য পরিষদের সভাপতি মিশফাক আহমেদ চৌধুরী মিশু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামসুল বাছিত শেরো, প্রবীণ নাট্যকর্মী সুনির্মল সেনাপতি, প্রয়াতের ভাই সোয়েব খান ও শায়েক খান। প্রায় অর্ধ শতাধিক সংগঠন ও ব্যক্তি পর্যায়ে অনেকেই প্রয়াত জহির খান লায়েকের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
সিলেট নাট্যাঙ্গনের অত্যন্ত সুপরিচিত মুখ, নিবেদিত প্রাণ নাট্যজন কথাকলি সিলেটের প্রবীণ নাট্যকর্মী জহির খান লায়েক গত শুক্রবার সকাল পৌঁনে ৮টার দিকে আকস্মিক মৃত্যুবরণ করেন। দীর্ঘ ৫০ বছরের উর্ধ্বে তিনি সিলেটের নাট্যাঙ্গনে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি বহু নাটকে মঞ্চ অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি ছিলেন একজন রূপসজ্জাশিল্পী। তাঁর মৃত্যুতে সিলেটের নাট্য ও সংস্কৃতিক অঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

Leave a Reply