সংসার ভেঙেছে শ্রাবন্তীর

বিনোদন

ইপশিতা শবনম শ্রাবন্তী, একবাক্যেই বলা যায়- ছোট পর্দার এক সময়ের জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী। যেন কালের গর্ভে হারিয়ে গেছেন।

অভিনয় ছেড়েও সুখ হল না, ভেঙেছে সংসার। সাত সমুদ্র তের নদী পাড়ি দিয়ে সুখের সন্ধ্যানে গেছেন স্বপ্নের দেশ আমেরিকায়। কিন্তু এরপরও সুখের দেখা মেলেনি। বরং বর্তমানে চারদিকে অমানিশার অন্ধকার নেমে এসেছে।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, ১২৪ দিন বাংলাদেশে অবস্থান করার পর গত শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্কে ফিরে যান তিনি। এ সময় তার সঙ্গে ছিল বড় মেয়ে রাবিয়াহ আলম আর ছোট মেয়ে আরিশা আলম।

এর আগে গত ৭ মে তাকে তালাকের নোটিশ পাঠান তার স্বামী জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম। শ্রাবন্তী দীর্ঘদিন যাবৎ যুক্তরস্ট্রপ্রবাসী। সেখানে থাকতেই স্বামীর পাঠানো তালাকের নোটিশের খবর পান।

এরপর গত ২৫ জুন দুই মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে দেশে ফেরেন শ্রাবন্তী। তবে স্বামীর সঙ্গে আপস-মীমাংসার জন্য নানা চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন তিনি।

এদিকে নিউইয়র্ক ফিরে গিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দেন তিনি। সেখানে লিখেন, সুন্দরভাবে পৌঁছেছি। এখানে ভালোই ঠান্ডা। আমার দুই মেয়ে মহা খুশি। ওদের স্কুল শুরু হবে। নতুন জীবন। সবাই আমার আর আমার দুই মেয়ের জন্য দোয়া করবেন, যেন আর কোনো ঝড় আমাদের তিনজনকে ভেঙে মুচড়ে দিতে না পারে।

এমন বাবার জন্য আমরা কাঁদব না, তুমিও কাঁদবে না- নিউইয়র্কে ফিরে মাকে এভাবেই সান্তনা দিয়ে বলেছে রাবিয়াহ আলম, শ্রাবন্তীর বড় মেয়ে। সেটাও স্ট্যাটাসের মাধ্যমে জানিয়েছেন শ্রাবন্তী। মেয়েদের কথা বলতে গিয়ে এ অভিনেত্রী আরও লিখেছেন, বাবাকে কাছে পেতে ওরা অনেক কষ্ট করেছে। অনেক কষ্ট পেয়েছে। ওরা নিজেরাই এখন ক্লান্ত। ওদের মন খারাপ হয়, কিন্তু বুঝতে দেয় না। উল্টো আমাকে বলছে স্ট্রং হতে।

Leave a Reply