‘বিএনপি জোট দেশকে ধ্বংস্তস্তুপে পরিণত করেছিলো; আ.লীগ উন্নয়নের মহাসড়কে নিয়ে গেছে’ : প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম

সিলেট বিভাগ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি বলেছেন, ‘বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার দেশকে ধ্বংসস্তুপে পরিণত করে রেখেছিল; আর আওয়ামী লীগ সরকারের দশ বছরে দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে নিয়ে গেছে। যার ফলশ্রুতিতে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হয়েছে।’

রোববার দক্ষিণ সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে ১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে সুনামগঞ্জ টেক্সটাইলস ইন্সটিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠান শেষে উপজেলা পরিষদ মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিভিন্ন দিক থেকে পিছিয়ে পড়া হাওরাঞ্চলের উন্নয়নে জননেত্রী শেখ হাসিনা সব সময়ই আন্তরিক উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে উন্নয়নের জোয়ার বইতে শুরু করেছে। যার প্রমাণ হাওর বেষ্টিত সুনামগঞ্জে ১ শত ২০ কোটি টাকা ব্যয়ে টেক্সটাইল ইন্সটিটিউট স্থাপনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন।

তিনি আরও বলেন, ‘উন্নয়নের ভিত্তিতে দেশকে সকল দিক থেকে এগিয়ে নিতে আওয়ামী লীগ সরকারের বিকল্প নেই। তাই সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিয়ে পুনরায় আওয়ামী লীগকে এগিয়ে নিতে দেশপ্রেমিক জনতাকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে এসে পুনরায় আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করতে হবে।’

বিএনপি-জামায়াত জোট দেশকে দুর্নীতি লুটপাট ও বোমাবাজীর রাজত্বে পরিণত করেছিলো উল্লেখ করে আরও বলেন, ‘স্বাধীনতা বিরোধী চক্র বঙ্গবন্ধু পরিবারকে নিশ্চিহ্ন করতে এবং আওয়ামী লীগকে নেতৃত্ব শুন্য করতেই ২১ আগষ্ট তৎকালীন বিরোধী দলের নেতা শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলা করেছিল।  একই ভাবে সেসময়ে বোমা হামলার মাধ্যমে সফল অর্থমন্ত্রী শাহ এমএস কিবরিয়া সহ আওয়ামী লীগের অনেক নেতা-কর্মীকে হত্যা করা হয়। এরকম নৃশংস হত্যাযজ্ঞ পরিচালনা করলেও তখন আওয়ামী লীগ ন্যুনতম বিচারের সুযোগ পায়নি।

’দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী তহুর আলী’র সভাপতিত্বে জনসভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম.এ মান্নান বলেন- ‘আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এই নির্বাচনে যদি বিএনপি অংশগ্রহণ না করে তাহলে বাংলাদেশ থেকে বিএনপি নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। তাদের অস্তিত্বের স্বার্থেই বিএনপিকে শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে আসতে হবে। দেশের মানুষ কোন অরাজকতা ও বিশৃঙ্খলা চায়না। তারা শান্তি ও উন্নয়ন চায়। আর শান্তি ও উন্নয়নে আওয়ামী লীগের বিকল্প নেই।’

উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রভাষক নুর হোসেনের পরিচালনায় জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক এমপি, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি, সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য জয়া সেন গুপ্তা এমপি, সুনামগঞ্জ মৌলভী বাজার সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট শামসুন্নাহার শাহানা রব্বানী এমপি, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমন, জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আকমল হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুর রহমান সিরাজ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান।

জনসভায় উপজেলার সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply