বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই গায়েবি মামলা : ফখরুল

রাজনীতি

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত সারা দেশে ৪ হাজার ১৪৯টি গায়েবি মামলা হয়েছে। আজ শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম এ কথা বলেন।

বিএনপির নেতা-কর্মীদের নামে হওয়া গায়েবি মামলার হিসাব তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত সারা দেশে ৪ হাজার ১৪৯টি গায়েবি মামলা হয়েছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, গায়েবি মামলায় এজাহারে নাম উল্লেখ করে আসামি করা হয়েছে ৮৬ হাজার ৬৯২ জনকে। অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে ২ লাখ ৭৬ হাজার ২৭৭ জনকে। সব মিলিয়ে আসামির সংখ্যা ৫ লাখ ৬২ হাজার ৯৬৭। এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৪ হাজার ৬৮৪ জনকে। রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে ২৭৪ জনকে।

ফখরুল বলেন, সরকারপ্রধান ও আওয়ামী লীগের নেতারা দেশে–বিদেশে বলছেন, নির্বাচনের পরিবেশ সুন্দর রয়েছে এবং সংবিধান অনুযায়ী আগামী নির্বাচন হবে। তিনি বলেন, কিন্তু নির্বাচন থেকে বিএনপিকে দূরে রাখার জন্য যত ধরনের কূট কৌশল আছে, তা প্রয়োগ করছে সরকার।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার সব ধরনের চেষ্টা চালাচ্ছে—বিএনপি যেন নির্বাচনে অংশ নিতে না পারে। দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের নামে যেসব মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে, তা দ্রুত শেষ করার চেষ্টা করছে সরকার। যেন তাঁদের নির্বাচন থেকে দূরে রাখা যায়। বিএনপির দলীয় প্রধানকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, গায়েবি মামলার বিরুদ্ধে তাঁরা হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন করার চিন্তা করছেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রধান বা যাঁরা এই মামলা দিচ্ছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না—এই বিষয়ে তাঁরা হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply