পাকিস্তানকে ২৪০ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ

খেলার খবর

আবুধাবি : মাশরাফি বিন মুর্তজাকে স্ট্রাইক দিতে গিয়ে রান আউট হয়ে ফিরে গেলেন রুবেল হোসেন। দৌড়ে গিয়ে নন স্ট্রাইকার প্রান্তের বেলস ফেলে দেন বোলার হাসান আলি।

৩ বলে ১ রান করে ফিরেন রুবেল। ৪৮.৪ ওভারে বাংলাদেশের স্কোর ২৩৯/৯। ক্রিজে মাশরাফির সঙ্গী ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান মুস্তাফিজ।

শেষে মাহমুদউল্লাহকে ঝড় তুলতে দিলেন না জুনায়েদ খান। দারুণ এক ডেলিভারিতে বোল্ড করে দিলেন বাংলাদেশের অন্যতম ব্যাটিং ভরসাকে।

স্টাম্প সোজা বল মিডউইকেট দিয়ে খেলতে চেয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ। ব্যাটের কানা ফাঁকি দিয়ে উড়িয়ে দেয় অফ স্টাম্প। ৩১ বলে ২৫ রান করে ফিরে যান মাহমুদউল্লাহ।

৪৮ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ২৩২/৮। ক্রিজে মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গী দলে ফেরা রুবেল হোসেন।

মিঠুনের বিদায়ের পর সুবিধে করতে পারেননি ইমরুল কায়েস। ছয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৯ রান করে আউট হন তিনি। আগের ম্যাচে ৭২ রানের ইনিংস খেলা কায়েস এদিন ফেরেন মাত্র ৯ রানে।

মিরাজকে দ্রুত ফেরালেন জুনায়েদ, বোলিংয়ে ফিরে আঘাত হেনেছেন জুনায়েদ খান। বাঁহাতি এই পেসার ফিরিয়ে দিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজকে।

ফুল লেংথের বল ফ্লিক করে মিডউইকেট ফিল্ডারের ওপর দিয়ে পাঠাতে চেয়েছিলেন মিরাজ। ঠিকমতো খেলতে পারেননি, সহজ ক্যাচ যায় বদলি ফিল্ডার শান মাসুদের হাতে।

বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে খেলাটি শুরু হয়। শুরুতেই পাওয়ার প্লে-র সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ। টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে এই সময়ে হারিয়েছে তারা। প্রথম তিন ব্যাটসম্যানের কেউ যেতে পারেননি দুই অঙ্কে। ১০ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ২৭/৩। পাওয়ার প্লেতে ৪৬টি ডট বল খেলেছে বাংলাদেশ।

খেলা শুরুর পরপরই জুনায়েদের দারুণ ডেলিভারিতে সাজঘরে ফিরে যান ওপেনার সৌম্য সরকার। এতে পাকিস্তানের পক্ষে দলে ফেরা জুনায়েদ খান শুরুতেই এলোমেলো করে দিয়েছেন বাংলাদেশকে। সৌম্য সরকারের পর আরেক ওপেনার লিটন দাসকে ফিরিয়ে দেন বাঁহাতি এই পেসার। অফ স্টাম্পে পড়ে সোজা আসা বল ব্যাটে খেলতে পারেননি লিটন। ব্যাটের কানা ফাঁকি দিয়ে অফ স্টাম্প উড়িয়ে দেয় বল। ১৬ বলে ৬ রান করেই ফিরেন লিটন।

ব্যাট হাতে মাঠে নেমে ব্যর্থ হন মুমিনুল হকও। তিনে নেমে দ্রুত ফিরেছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

এশিয়া কাপের আজকের ম্যাচটি অঘোষিত সেমিফাইনালে পরিণত হয়েছে। দুই ম্যাচ জিতে আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ভারত। অন্যদিকে দুই ম্যাচ হেরে বিদায় নিয়েছে আফগানিস্তান।

ফলে সুপার ফোরের দুটি ম্যাচের একটি করে জেতা বাংলাদেশ ও পাকিস্তান একই বিন্দুতে। দুদলের সামনেই অভিন্ন সরল সমীকরণ। জিতলে ফাইনাল, হারলে বিদায়।

এশিয়া কাপের অলিখিত সেমিফাইনালে রূপ নেয়া আজকের ম্যাচে বাংলাদেশ দলে দুটি পরিবর্তন। তামিমের জায়গায় টানা তিন ম্যাচে সুযোগ দেয়া হয়েছিল তরুণ ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্তকে। তিন ম্যাচেই ব্যর্থ তিনি। আরেক ওপেনার লিটন দাসও দিতে পারছেন না প্রত্যাশার প্রতিদান।

আর আঙুলের ইনজুরির কারণে সাকিব আল হাসানের পরিবর্তে খেলছেন মুমিনুল হক সৌরভ। নাজমুল ইসলাম অপুর পরিবর্তে খেলছেন অভিজ্ঞ পেস বোলার রুবেল হোসেন।

বাংলাদেশের একাদশ : লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক, ইমরুল কায়েস, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), মেহেদি হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন ও মোস্তাফিজুর রহমান।

পাকিস্তান একাদশ : ইমাম উল হক, ফখর জামান, বাবর আজম, সরফরাজ আহমেদ, শোয়েব মালিক, আসিফ আলী, শাদাব খান, মোহাম্মদ নাওয়াজ, হাসান আলী, জুনায়েদ খান, ও শাহিন শাহ আফ্রিদি।

Leave a Reply