ছাত্রদল নেতা রাজু হত্যাকাণ্ডে এখনো মামলা হয়নি

সিলেট বিভাগ

সিলেটে ছাত্রদল নেতা ফয়জুল হক রাজুর খুনের ঘটনায় রোববার বেলা ২টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। তখন পর্যন্ত পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেফতারও করতে পারেনি। সংগঠনের অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে শনিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে নগরীর কুমারপাড়া এলাকায় হামলায় গুরুতর আহত হয়ে ওসমানী হাসপাতালে নেওয়ার পর মৃত্যু হয় তার।

নিহত রাজু (২৯) সিলেট মহানগর ছাত্রদলের প্রাক্তন যুগ্ম-সম্পাদক। তিনি মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের শাহপুর গ্রামের ফজর আলীর ছেলে। তিনি সিলেট ল কলেজে এলএলবিতে অধ্যায়নরত ছিলেন। তিনি ভাগ্নে রাজু নামেও পরিচিত ছিলেন।

নিহত রাজুর মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে রোববার দুপুরে তার পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। বিকেল তিনটায় নগরীর শাহজালাল উপশহরের এ ব্লক জামে মসজিদে তার প্রথম জানাযা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান ২২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলরে এডভোকেট সালেহ আহমদ সেলিম।

এবিষয়ে সিলেট জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী এবং নিহতের চাচা দবির আলী বলেন, নিহত রাজুর প্রথম জানাজা আজ বিকাল ৩টায় শাহজালাল উপশহরের এ ব্লক জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে। এবং দ্বিতীয় জানাজা আজ বাদ এশা মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর থানার ফতেপুর ইউনিয়নের শাহপুর গ্রামে অনুষ্ঠিত হবে। জানাজার নামাজ শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

উক্ত জানাজায় সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনেরে সকল পর্যায়ের নেতাকর্মী এবং রাজুর সহকর্মীদের উপস্থিত থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মোশারফ হোসন বলেন, ‘ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি।

উল্লেখ্য যে, শনিবার রাতে সিলেট সিটি করপোরেশনের পুন:নির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বিজয় মিছিল শেষে ফেরার সময় নিজ দলের ক্যাডারদের হামলায় নিহত হয়েছেন সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ প্রচার সম্পাদক ফয়জুল হক রাজু।

রাত ৯টার দিকে আরিফুল হক চৌধুরীর বাসার পাশে কুমারপাড়া পয়েন্ট এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

Leave a Reply