৪১৯ হজযাত্রী নিয়ে জেদ্দার উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছে বিমানের প্রথম হজ ফ্লাইট

জাতীয়

অাজ থেকে শুরু হলো ২০১৮ সালের হজ ফ্লাইট। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইট বিজি-১০১১ শনিবার সকাল ৭টা ৫৫ মিনিটে ৪১৯ হজযাত্রী নিয়ে জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছে।

হজক্যাম্পের পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম জানান, উদ্বোধনী ফ্লাইটের হজযাত্রীদের বিদায় জানাতে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল ও ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন।

হজ ফ্লাইটের প্রথম দিনে জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বে সকাল ১১টা ৫৫ মিনিটে বিজি-৩০১১, বিকেল ৩টা ৫৫ মিনিটে বিজি-৫০১১ এবং রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে শিডিউল ফ্লাইট বিজি-০০৩৫।

হজযাত্রীদের যাত্রা শান্তিপূর্ণ করতে নিয়োজিত থাকবেন পুলিশ কন্ট্রোলরুমের পাশাপাশি পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, রোভার স্কাউট সদস্য, আঞ্জুমান মফিদুল ইসলামসহ ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সদস্যরা।

কয়েক দিন থেকেই আশকোনা হজ ক্যাম্পে আসতে শুরু করেছেন হজযাত্রীরা। হজের আয়োজন নিয়ে তেমন কোনো অভিযোগ নেই তাদের। আজ সকাল থেকেই পবিত্র মক্কার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করবেন তারা। এ জন্য তাদের মনে এক অন্য রকম অনুভূতি বিরাজ করছে।

বিমান বাংলাদেশ সূত্রে জানা গেছে প্রথম কয়েক দিনের ফ্লাইট নিয়ে কোনো সমস্যা নেই তাদের। তবে সৌদি আরবের সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ নতুন এক নির্দেশনা জারি করায় বিপাকে পড়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। নতুন নিয়মানুযায়ী ভাড়া করা বিমানে হজযাত্রী পরিবহন করা যাবে না। কিন্তু বিমান বাংলাদেশ মালয়েশিয়া থেকে চারটি উড়োজাহাজ ভাড়া করেছে। এসব উড়োজাহাজ ব্যবহার করতে না পারায় বিপাকে পড়েছে বিমান।

এদিকে এ বছর সৌদি সরকার নির্ধারিত বরাদ্দকৃত স্লটের বাইরে অতিরিক্ত কোনো ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দেবে না বলে অবহিত করেছে। কিন্তু বিমান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ২৫ জুলাই থেকে ১০ আগস্ট পর্যন্ত সময়কালের বিভিন্ন ফ্লাইটে এখনো প্রায় ১২ হাজার হজ টিকিট অবিক্রীত রয়েছে।

এছাড়া এবারই প্রথমবারের মতো হজযাত্রীদের টিকিট ক্রয় করার পর যাত্রার তারিখ পরিবর্তনে ১০০ ডলার বা সমপরিমাণ টাকা এবং যাত্রা বাতিলের ক্ষেত্রে ২০০ ডলার বা সমপরিমাণ টাকার বাড়তি মাসুল আদায়ের বিধান চালু করা হয়েছে।

এ বছর এক লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজে যাবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ছয় হাজার ৭৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এক লাখ ২০ হাজার জন। আজ থেকে শুরু হওয়া হজ ফ্লাইট ১৫ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। ২১ আগস্ট পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এরপর ২৭ আগস্ট থেকে শুরু হবে ফিরতি ফ্লাইট। ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে ফিরতি ফ্লাইট। বাংলাদেশ বিমান ১৮৭টি ফ্লাইটে ৬৩ হাজার ৫৯৯ হজযাত্রী পরিবহন করবে এবং সাউদিয়া এয়ারলাইন্স ৬১ হাজার ৮৩১ হজযাত্রী পরিবহন করবে।

জানা যায়, এ পর্যন্ত প্রায় ২৫ হাজার হজযাত্রীর ভিসা সম্পন্ন হয়েছে। তবে এখনো বাকি আছে প্রায় এক লাখ হজযাত্রীর ভিসা।

এ দিকে বিমান বাংলাদেশ জানিয়েছে, নির্ধারিত সময়ে, নির্বিঘ্নে হজ ফ্লাইট পরিচালনার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। হজযাত্রীদের ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে পরিবহনে বিমানের চারটি নিজস্ব উড়োজাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে চলাচলকারী বিমানের নিয়মিত শিডিউল ফ্লাইটেও হজযাত্রীরা পবিত্র ভূমিতে যাবেন। চট্টগ্রাম ও সিলেট থেকেও এ বছর যথাক্রমে ৯টি ও ৩টি হজ ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।

ভাড়া করা বিমান প্রসঙ্গে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ বলেন, অনাকাক্সিক্ষতভাবে এ পরিস্থিতিতে পড়তে হয়েছে আমাদের। গত বছরও যে প্রতিষ্ঠান থেকে বিমান লিজ নেয়া হয়, এ বছরও একই প্রতিষ্ঠান থেকে নেয়া হয়েছে। সেই প্রতিষ্ঠান থেকে লিজ নেয়া বিমান দিয়ে সৌদি আরবে শিডিউল ফ্লাইট পরিচালনা করা হয়েছিল। এ বছর হজ ফ্লাইট শুরুর আগ মুহূর্তে সৌদি আরবের এ সিদ্ধান্তে আমাদের বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলেছে।

তিনি বলেন, সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে যোগাযোগ করে কোনো সমাধান করা যায় কি না, ওই চেষ্টাও অব্যাহত রয়েছে। এর পরও আমরা যাত্রীদের সুবিধার্থে বিকল্প ব্যবস্থা নিয়েছি। আশা করছি, যাত্রীরা বিষয়টি অনুধাবন করবেন।

Leave a Reply