টাইব্রেকারে ডেনমার্ককে হারিয়ে শেষ আটে ক্রোয়েশিয়া

খেলার খবর

ডেনমার্ককে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে হারিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে ক্রোয়েশিয়া। টাইব্রেকারে তিনটি পেনাল্টি ঠেকিয়ে যৌথভাবে রেকর্ড গড়েন ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক দানিয়েল সুবাসিচ। এর আগে ২০০৬ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পর্তুগালের রিকার্ডো তিনটি পেনাল্টি ঠেকিয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন।

রবিবার নিঝনি নভগোরোদ স্টেডিয়ামে খেলা শুরুর পাঁচ মিনিটেই দুই গোল। প্রথম মিনিটেই গোল করে এগিয়ে যায় ডেনমার্ক। জটলা থেকে ইয়োর্গেনসেনের শট ক্রোয়েশিয়া গোলরক্ষক দানিয়েল সুবাসিচের পায়ে লেগে জালে জড়ায়।

দুই মিনিট অতিক্রম না হতেই সমতা ফেরে ক্রোয়েশিয়া। চতুর্থ মিনিটে ডিফেন্ডার আন্দ্রেয়াস ক্রিস্টেনসেনের গায়ে লেগে ডি-বক্সে বল পেয়ে যান মারিও মান্দজুকিচ। সেখান থেকে ট্যাপ করে বল গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এই ফরোয়ার্ড। পরে আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে শেষ হয় প্রথমার্ধ।

শুরুতেই পাওয়া গোলের পর প্রথম ৪৫ মিনিট আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে বেশ উপভোগ্য ছিল লড়াই। তবে বিরতির পরই বদলে যায় ম্যাচের হাল। উভয় দল রক্ষণাত্মক খেলতে থাকে। খেলার গতি মন্থর হয়ে পড়ায় আর কোনো গোল হয়নি।

খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। তখন আবার ফিরে আগের গতি। অতিরিক্ত সময়ের শুরু থেকে চড়াও হয় ডেনমার্ক। চার মিনিটে গোল প্রায় আদায় করে ফেলেছিল। কুদেনসেন-এরিকসেনরা ক্রোয়েশিয়ার বক্সে ঢুকেও হতাশ করেছেন দুর্বল চেষ্টায়। মিনিট দশেক পর লুকা মদ্রিচ তৈরি করেছিলেন সুযোগ। ডেনমার্কের জমাট রক্ষণ ভেঙে ঠিকমতো ক্রস করতে পারেননি।

অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ার্ধে বাজিমাত করার সুযোগ এসেছিল ডেনমার্কের বদলি খেলোয়াড় পিওনে সিস্টর সামনে। বা দিক থেকে দারুণ গতি নিয়ে ছুটে গিয়ে তার মারা শট অল্পের জন্য বাইরে চলে যায়।

১১৪ মিনিটে পেনাল্টি পায় ক্রোয়েশিয়া। দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে ডিবক্সে ঢুকে পড়া রেবিচকে ফাউল করেন জর্গেনসেন। স্পট কিক করেন লুকা মদরিচ। কিন্তু তার নিচু শট বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকান কাসপেস স্মাইকেল।

১১৮ মিনিটে লক্ষ্যে নেয়া মদরিচের শট আবার রুখে দেন ডেনমার্ক গোলরক্ষক। অতিরিক্ত সময়েও আর কেউ গোলের দেখা না পাওয়ায় ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। টাইব্রেকারে প্রথম একটি করে শট মিস করে দুই দল। পরের দুই শটে আবারো গোল। চতুর্থ শটে দুই দলেরই মিস। তবে পঞ্চম শটে গোল করে ক্রোয়েশিয়া কিন্তু ডেনমার্কের শট ঠেকিয়ে দেন ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক। এই জয়ে চতুর্থ দল হিসেবে শেষ আটে জায়গা করে নিয়েছে ক্রোয়েশিয়া। এর আগে ফ্রান্স, উরুগুয়ে ও রাশিয়া কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে। ক্রোয়েশিয়া এর আগে ১৯৯৮ সালে প্রথমবার বিশ্বকাপে খেলতে গিয়েই সেমিফাইনালে উঠেছিল।

Leave a Reply