অতিরিক্ত সময়ে বাজিমাত সৌদি আরবের

খেলার খবর

মস্কো : গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে মিশরের মুখোমুখি হয়ে ২-১ গোলে জিতেছে সৌদি আরব।

ম্যাচের ২২ মিনিটে দলকে লিড এনে দেন লিভারপুল স্টাইকার মোহাম্মদ সালাহ। কিন্তু তা বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি। কিছু সময় পরেই সালমান আল ফারাজের গোলে সমতায় ফিরে সৌদি আরব।

৯৫ মিনিটে মিশর ডিফেন্সকে ফাঁকি দিয়ে নিচু ভলিতে গোলবারের কোণা দিয়ে বল জালে জড়িয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন সৌদি আরবের মিডফিল্ডার সালেম আল দাউসারি।

প্রথমার্ধের বিরতি শেষে মিশর রক্ষণকে প্রচণ্ড চাপে রাখে সৌদি আরব। পুরো ম্যাচে স্পষ্ট আধিপত্য দেখিয়েছে সৌদি। ম্যাচের ৬২ শতাংশ বল দখলে রাখার পাশপাশি ৭ বার গোল লক্ষ্য করে আক্রমণ শানিয়েছে দলটি। বিপরীতে মিশরের খেলা অনেকটা ছন্নছাড়া। মাত্র একবারই টার্গেট লক্ষ্য করে শট করতে সক্ষম হয়েছে হেক্টর কুপারের দল। আর তা থেকে গোলও পেয়েছে।

ম্যাচের প্রথম গোল আসে লিভারপুলের মিশরীয় তারকা মোহামেদ সালাহ’র পা থেকে। দলের সেরা তারকা মোহামেদ সালাহ’র ২২ মিনিটের গোলে এগিয়ে যায় মিশর। চলতি বিশ্বকাপে এটি তার দ্বিতীয় গোল। সৌদি ডিফেন্সে জায়গা বানিয়ে দারুণ দক্ষতায় বল নিয়ন্ত্রণে রেখে সৌদি গোলরক্ষের উপর দিয়ে জালে পাঠিয়ে দিয়ে উল্লাসে মাতান মিশর সমর্থকদের।

তবে মিশরের জন্য স্বস্তির মুহূর্ত ওই একবারই ধরা দেয়। প্রথমার্ধের শেষ বাঁশি বাজার ঠিক ১ মিনিট আগে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। এবার মিশরের ডি বক্সে ফাউলের শিকার হন প্রথম পেনাল্টি মিস করা সৌদি আরবের ফাহাদ। ফাউল করা আলি গাবরকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি। পরে ভিএআর’র সহায়তা নিয়ে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন রেফারি। এবার অবশ্য গোল মিস করেন নি সৌদি আরবের ফারাজ।

এর মিনিট পাঁচেক আগেই পেনাল্টি থেকে গোল করার সুযোগ মিস করে সৌদি আরব। ম্যাচের ৪১ মিনিটে নিজেদের ডি বক্সে হ্যান্ড বল করেন মিশরীয় ডিফেন্ডার আহমেদ ফাতহি। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। সমতায় ফেরার দারুণ এক সুযোগ পেয়ে যায় সৌদি আরব। কিন্তু সৌদি ফরোয়ার্ড ফাহাদের পেনাল্টি শট ডান দিকে ঝাপ দিয়ে ঠেকিয়ে দেন বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে বয়সী ফুটবলারের রেকর্ড গড়া এল-হাদারি। কিন্তু পরের বার আর সফল হতে পারেন নি এই বর্ষীয়ান গোলরক্ষক।

প্রথমার্ধের ১-১ গোলের সমতা শেষ বাঁশি বাজার আগ পর্যন্ত অক্ষুণ্ণ থাকে। কিন্তু ম্যাচের শেষ মুহূর্তে (৯৫ মিনিট) আল দাউসারির ওই অসাধারণ গোলে জয় নিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপ মিশন শেষ করলো সৌদি আরব। অন্যদিকে সবগুলো ম্যাচেই পরাজয়ের জ্বালা নিয়ে শেষ হল মিশরের বিশ্বকাপ মিশন।

এই জয়ে গ্রুপ ‘এ’র পয়েন্ট টেবিলে তৃতীয় স্থানে থেকে বিদায় নিলো সৌদি আরব। আর টানা তিন পরাজয় নিয়ে শূন্য হাতে বিদায় নিলো মিশর।

দল জয় না পেলেও ম্যাচসেরা হয়েছেন মিশরের মোহামেদ সালাহ।

পরে দুইপক্ষেই প্রাণপণ চেষ্টায়ও নির্ধারিত সময়ে কোনো গোলের দেখা মেলেনি। অবশেষ অতিরিক্ত সময়ে গিয়ে মিশরের জালে গোল ঢুকিয়ে বাজিমাত করে সৌদি।

Leave a Reply