সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা, আমার জন্য দোয়া করবেন : দেশবাসীকে খালেদা জিয়া

রাজনীতি

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে কারাগারে দেখা করার অনুমোদন না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্র সচিব ও কারা কর্তৃপক্ষের কাছে তারা আবেদন জানালেও কারো পক্ষ থেকে কোনো জবাব আসেনি।

শনিবার বেলা ১২টার দিকে আলমগীর এবং দলের স্থায়ী কমিটির কয়েকজন সদস্য জেলগেটের সামনে গেলেও জেল কর্তৃপক্ষের অনুমতি না থাকায় তাদের ফিরিয়ে দেয়া হয়।

শনিবার সকালে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বিশেষ মোনাজাত শেষে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করেন বিএনপি নেতারা।

পরে তারা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারে যান।

এ সময় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সাথে ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ অনেকে।

এছাড়া জড়ো হন বিএনপির অঙ্গ সংগঠন ও মহিলা দলের নেতাকর্মীরাও।

তবে জেল কর্তৃপক্ষের অনুমতি না থাকায় তাদের কাউকেই ফটকের কাছে যেতে দেয়া হয়নি।

এ অবস্থায় বিএনপি নেতারা কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর ফিরে যান।

এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে আলমগীর জানান, খালেদা জিয়ার সঙ্গে ঈদের দিন দেখা করার জন্য তিন দিন আগে স্বরাষ্ট্র সচিবের কাছে এবং কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানো হলেও কারো পক্ষ থেকে কোন জবাব আসেনি।

তিনি বলেন, পুলিশ আমাদেরকে জেলগেটের সামনেও পৌঁছাতে দেয়নি। এটা প্রচলিত নিয়মের বাইরে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছি। আমরা শুরুতে সবাই যেতে চাইলেও পরে বলেছি অন্তত দুইজনকে দেখা করতে দেয়া হোক। তারা সেটারও অনুমোদন দেয়া হয়নি। এ বিষয়ে তাদের সঙ্গে আমরা যোগাযোগের চেষ্টা করেছি কিন্তু কেউ ফোন ধরেনি।

মূল মামলায় বিএনপি নেত্রীর জামিন হলেও সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে তার তাকে মিথ্যা মামলায় ফাসিয়ে জামিন বিলম্বিত করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বিএনপি মহাসচিব আরো বলেন, সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে আমাদের দলের চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জনগণের থেকে দূরে রাখতে তাকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে তার কারামুক্তি বিলম্ব করার চেষ্টা করছে। এবং এটা বেআইনীভাবে হচ্ছে। তবে আমরা খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য জনগণকে নিয়ে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত রাখবো।

বিএনপি নেতাদের কেনো খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হয়নি এ ব্যাপারে জানতে কারাগারের মহাপরিদর্শক সৈয়দ ইফতেখান উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন মন্তব্য করবেন না বলে জানান।

এদিকে, দলীয় নেতারা সুযোগ না পেলেও খালেদা জিয়ার আত্মীয়-স্বজনরা কারাবিধি অনুযায়ী তার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পেয়েছেন।

দুপুর আড়াইটার দিকে তার সঙ্গে ফুল ও খাবার নিয়ে দেখা করতে যান তার ভাই-ভাবীসহ ২০ জন আত্মীয়।

কারাগার থেকে খালেদা জিয়া দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি নিজের জন্য দোয়া চেয়েছেন বলে জানান বিএনপি নেতারা।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দলীয় চেয়ারপারসন কারাগারে থাকায় ঈদে বিএনপির পক্ষ থেকে বিশেষ কোনো কর্মসূচি রাখা হয়নি বলে জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল।

Leave a Reply