মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ প্রকাশ

আন্তর্জাতিক

ওয়াশিংটন : বাংলাদেশে মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিদার নোয়ার্টের উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানা যায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আমরা উদ্বেগ প্রকাশ করছি মে মাস থেকে শুরু হওয়া বাংলদেশের নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক মাদকবিরোধী অভিযানের প্রতি যেখানে ইতমধ্যে ১৪৭ জন নিহত হয়েছেন এবং ২১ হাজার জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সকল বিচারবহির্ভুত হত্যাকাণ্ডের বিশ্বাসযোগ্য প্রতিবেদনের জন্য পুঙ্খানুপুঙ্খ এবং স্বচ্ছ তদন্ত পরিচালনা করতে আমরা বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানাই। যখন অবৈধ মাদকদ্রব্য বিশ্ব জুড়ে একটি সংক্রমণ, বাংলাদেশের উচিত নিশ্চিত করা যেন তার আইন রক্ষাকারী বাহিনী মানবাধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে, এবং তাদের এই অভিযান যেন আন্তর্জাতিক মান এবং বাংলাদেশের নিজস্ব সংবিধানের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়, যেখানে নির্দোষ প্রমানের সুযোগ থাকে এবং যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া পাওয়ার অধিকার রয়েছে। আমরা বাংলাদেশ সরকারের কাছে প্রত্যাশা করছি, যেন তারা মানবাধিকারের বাধ্যবাধকতা সম্পূর্ণভাবে পূরণ করে।’

এতে তিনি বলেছেন, মে মাসের শুরুর দিকে দেশজুড়ে মাদক বিরোধী অভিযান শুরু করেছে বাংলাদেশের নিরাপত্তা রক্ষাকারী বাহিনীগুলো। এ সময়ে কমপক্ষে ১৪৭ জনকে হত্যা করা হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২১০০০ মানুষকে। এমন রিপোর্টে উদ্বেগ প্রকাশ করছে যুক্তরাষ্ট্র।

তিনি আরো বলেন, আমরা বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডগুলোর বিশ্বাসযোগ্য সব রিপোর্টের পূর্ণাঙ্গ ও স্বচ্ছ তদন্ত করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি বাংলাদেশের প্রতি। বিশ্বজুড়ে অবৈধ মাদকের ব্যবহার বৃদ্ধি হলেও বাংলাদেশের উচিত তার আইন প্রয়োগকারীদেরকে মানবাধিকারের প্রতি সম্মান নিশ্চিত করা। আন্তর্জাতিক মানদন্ড অনুসরণ করা এবং এক্ষেত্রে নিজেদের সংবিধান মেনে চলা। এতে সবাইকে নির্দোষ হিসেবে ধরা হয়েছে এবং তাদের যথাযথ আইনী প্রক্রিয়া পাওয়ার অধিকার রয়েছে। তাই মানবাধিকারের প্রতি বাংলাদেশের যে বাধ্যবাধকতা রয়েছে তা পূর্ণাঙ্গভাবে বাংলাদেশ সরকার মেনে চলবে বলে আমরা দেখতে চাই।

Leave a Reply