জুনের নির্বাচনে জনগণ বিরোধীদের উপযুক্ত জবাব দেবে : এরদোগান

আন্তর্জাতিক

আঙ্কারা: তুরস্কের ‘পার্লামেন্টকে অপবিত্র’ করার জন্য প্রধান বিরোধী দল রিপাবলিকান পিপলস পার্টিকে (সিএইচপি) অভিযুক্ত করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান।

সিএইচপি’র ১৫ জন ডেপুটি নেতা দলটি থেকে বেরিয়ে নতুন প্রতিষ্ঠিত ‘আইওয়াইআই’ বা ‘গুড’ পার্টিতে যোগদান এবং একটি সংসদীয় দল গঠন করতে দলটিকে সহায়তার জন্য এরদোগান সিএইচপি’কে এই অভিযুক্ত করেন।

জাতীয় সার্বভৌমত্ব ও শিশু দিবস উপলক্ষে সোমবার পার্লামেন্টে দেয়া বক্তব্যে এরদোগান এসব কথা বলেন।

দেশটির আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের তারিখ উল্লেখ করে এরদোগান বলেন, ‘যারা পবিত্র পার্লামেন্টকে অপবিত্র করেছে, ২৪ জুন তারিখে আমার জাতি, আমার নাগরিকরা তাদের উপযুক্ত জবাব দেবে। আর ব্যালট বাক্সই হচ্ছে এর উপযুক্ত সমাধান।’

সিএইচপি’র নেতাকে উদ্দেশ্য করে এরদোগান বলেন, ‘আপনার তথাকথিত ১৫ জন ডেপুটি সদস্য আপনার দল ত্যাগ করছেন এবং তারা আইওয়াইআই দলের সঙ্গে যোগদান করছেন।’

গত ২২ জুন তারিখে সিএইচপি দলের ১৫ জন ডেপুটি সদস্য নতুন প্রতিষ্ঠিত ‘আইওয়াইআই’ বা ‘গুড’ পার্টিতে যোগদান করেন। ২৪ জুন তারিখের আসন্ন নির্বাচনে দলটি যাতে অংশ নিতে সক্ষম হয় তা নিশ্চিত করতেই তাদের এই দলত্যাগের ঘটনা। আইওয়াইআই পার্টির নেতা মেরাল আকসেনে ইতোমধ্যে ঘোষণা করেছেন যে তিনি এরদোগানের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নিবেন।

এরদোগান এটিকে ১৯৭৭ সালে ‘গানেস মোটেল’ ঘটনার সঙ্গে তুলনা করেন। ওই বছর ইস্তাম্বুলে গানেস মোটেলে একটি গোপন বৈঠকের পর জাস্টিস পার্টির (এপি) ১২ জন সংসদ সদস্য সিএইচপিতে যোগ দিতে প্রলব্ধ করা হয়। তাদের সমর্থন নিয়ে তৎকালীন সিএইচপি নেতা বুলেন্ট ইসিভিট একটি নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করতে সক্ষম হন।

আগাম নির্বাচনের আহ্বান জানিয়ে গত ২০ এপ্রিল তারিখে তুরস্কের পার্লামেন্ট একটি বিল পাস করেছে। ক্ষমতাসীন ও বিরোধী পক্ষের ৩৮৬ জন সংসদ সদস্য এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে তা সমর্থন করেছেন।

এর আগে ২০১৯ সালের নভেম্বরে ওই নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। এ নির্বাচনের পর দেশটির শাসন ব্যবস্থায় প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা আরো বৃদ্ধি পাবে।

তুরস্কের নির্বাচন এমন সময় ঘোষণা দিয়েছেন যখন এরদোগান সরকারের সফল আফরিন অভিযান শেষ হয়েছে। ওই অভিযানের পর পিকেকেসহ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সম্ভাব্য হামলার ঝুঁকি থেকে অনেকটা নিরাপদ হয়েছে।

এছাড়াও তুরস্কের এককভাবে পরিচালিত এ অভিযান আন্তর্জাতিক বিশ্বে দেশটির গুরুত্ব আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। এটি এরদোগানের জন্য আগামী নির্বাচনে বিশেষ সহায়ক হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্র: ডেইলি সাবাহ নিউজ

Leave a Reply