বিপুল জনপ্রিয়তার কারণেই ইলিয়াসকে গুম করেছে সরকার

সিলেট বিভাগ
 বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য এম. ইলিয়াস আলীকে ‘সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় ফিরে দেয়ার’ দাবিতে স্বেচ্ছাসেবকদল ও ছাত্রদলের যৌথ উদ্যোগে মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট নগরীতে মানবন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। নগরীর চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘ইলিয়াস আলী নিখোঁজের ছয় বছর হয়ে গেলেও সরকার এখন পর্যন্ত তাঁর খোঁজ দিতে পারছে না। তাঁর বিপুল জনপ্রিয়তার কারণেই সরকারের মদদে তাকে গুম করা হয়েছে।’

মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন সেলিম বলেন, ‘ইলিয়াস আলীর মত দেশপ্রেমিক নেতাকে নিয়ে বৃহত্তর সিলেটের মানুষ সমৃদ্ধির স্বপ্ন জাল বুনছিল। সময়ের সাহসী এই নেতাকে গুম করে সরকার সিলেটবাসীর হৃদয়ে কুঠারাঘাত করেছে।’

মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারের অন্যায়, অত্যাচার, জুলুম, নির্যাতন এবং দেশের স্বার্থবিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলায় ইলিয়াস আলীকে গুম করা হয়েছে। সিলেটের আপামর জনসাধারণের হৃদয়ে ইলিয়াস আলীর নাম লেখা রয়েছে।’ তারা অবিলম্বে ইলিয়াস আলীকে ‘সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দিতে’ সরকারের প্রতি দাবি জানান। অন্যথায় সরকার ও আওয়ামী লীগকে এর জন্য ‘চরম খেসারত দিতে হবে’ বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন বক্তারা।

সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবকদলের আহবায়ক কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে এবং জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামালের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত  মানববন্ধনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি সালেহ আহমদ খসরু, কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, সামিয়া বেগম চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, লুৎফুল হক খোকন, জেলা বিএনপির সহ সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুর চৌধুরী ফয়সল, সাবেক ছাত্রনেতা নজিবুর রহমান নজিব, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ময়নুল হক, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট ফখরুল হক, জেলা বিএনপির যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক আরিফ ইকবাল নেহাল চেয়ারম্যান, মহানগর বিএনপির মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুর রহমান চৌধুরী, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শাকিল মুর্শেদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহ কোষাধ্যক্ষ ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের যুগ্ম আহবায়ক জাকির হোসেন, জেলা বিএনপির সহ ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল ওয়াহিদ সুহেল, মহানগর বিএনপির সহ কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মাসুক আহমদ, জেলা শ্রমিক দলেল ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সুরমান আলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন, মহানগর বিএনপির সদস্য কামাল হাসান জুয়েল, সোহাদ রব চৌধুরী, জেলা বিএনপির সদস্য ও জেলা ছাত্রদলের সহ সভাপতি চৌধরী মোহাম্মদ সুহেল, জেলা বিএনপি নেতা খালেদ আহমদ চেয়ারম্যান, বিএনপি নেতা আহমেদ আহসান মাহবুব, মহানগর বিএনপির সদস্য সাব্বির আহমদ, মহানগর বিএনপির সদস্য মইনুল ইসলাম মঞ্জুর, দেলোয়ার হোসেন রানা, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের যুগ্ম আহবায়ক মল্লিক আহমদ, ২৭নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা জাবেদ আহমদ জীবন, মহানগর জাসাস এর যুগ্ম সম্পাদক ফিরোজ আহমদ, স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা সৈয়দ হোসেন সাবু, আলী আকবর খান, ফখর উদ্দিন মাহমুদ,  ইফতি আহমেদ সুমিম, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান নেছার,যুগ্ম সম্পাদক আফছর খান,  মহানগর যুগ্ম সম্পাদক এমদাদুল হক স্বপন, যুগ্ম সম্পাদক আবু তাহের, কল্লোল জ্যোতি বিশ্বাস জয়, যুগ্ম সম্পাদক এনামুল হক শামীম, যুগ্ম সম্পাদক কামরান আহমদ হেলাল, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাধারণ সম্পাদক আফজল হোসেন চৌধুরী, সাবেক ছাত্রদল নেতা আলতাফ হোসেন টিটু, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সদস্য সুদিপ জ্যোতি এষ্, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম বাবুল, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ফাহিম রহমান মৌসুম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক তানভীর আহমদ চৌধুরী, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সাফায়াত হোসেন সাজ্জাদ, শেখ দিপু, জেলা ছাত্রদলের আইন বিষয়ক সম্পাদক সুহেদুল ইসলাম সুহেদ, মাহনগর স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন, সালেক আহমদ, সাহেদ আহমদ, জাহেদ আহমদ, রাসেল আহমদ খান, শেখ স¤্রাট, সুমন জালালী, মজনুর রহমান, জেলা ছাত্রদল নেতা সাইফুল আলম কোরেশী, সাইদুল ইসলাম রনি, কয়েছ আহমদ, মনোয়ার হোসেন রুপক, সুলেমান খান, এ এইচ নোমান পাখি, আজিজ খান সজীব, জেলা ছাত্রদলের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আলী আকবর রাজন, ফারুক আহমদ, বাইন উদ্দিন, নাজিম উদ্দিন প্রমুখ।

২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল ঢাকার বনানী থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ নিখোঁজ হন বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলী। এ ঘটনায় বনানী থানায় ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা জিডি দায়ের করেন।

Leave a Reply