বিএনপি চালাচ্ছে ফেরারি আসামি : খাদ্যমন্ত্রী

রাজনীতি

খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘আজকে আপনাদের নেত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন। আজকে যাঁর নেতৃত্বে দল চলছে (তারেক রহমান), তিনি একজন ফেরারি আসামি।’

শনিবার সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক আলোচনা সভায় কামরুল ইসলাম এ মন্তব্য করেন।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কামরুল ইসলাম বলেন,‘বিএনপির অভিযোগ সরকার বা আওয়ামী লীগ বিএনপিকে ভাঙার চেষ্টা করছে। সরকার বা আওয়ামী লীগের বিএনপিকে ভাঙার কোনো প্রয়াস নেই। এগুলো আপনারা করেছেন। বিভিন্ন সময়ে আপনারা সরকারে থাকার সময় করেছেন। সরকারের এগুলো করার কোনো অভিপ্রায় নেই।’

বিএনপি বিষয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি ভাঙবে কি এককাট্টা থাকবে, এটা বিএনপির বিষয়। বিএনপির শুভবুদ্ধিসম্পন্ন নেতারা একজন ফেরারি আসামির নেতৃত্ব মানতে চান না, তাকে ঘৃণাভরে দেখেন। এই ঘৃণা করার কারণে যদি বিএনপি ভাঙে ভাঙতে পারে। তাকে পছন্দ না করার জন্য বিএনপি ভাঙলে আমাদের কিছু করার নেই। আর এই অপছন্দ করার জন্য বিএনপি ভেঙে খণ্ডবিখণ্ড হবে—এটাই আমরা মনে করি।’

কারাবন্দী হওয়ার দুই মাস পর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য শনিবার সকালে কারাগার থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) নেওয়া হয়।

আজ এ বিষয়েও বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ করে কামরুল ইসলাম বলেন, ‘আপনারা খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন, এটা নিয়ে অহেতুক বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন।’

তিনি আরও বলেন, একজন রাজনৈতিক নেত্রী হিসেবে, দুবারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সরকার খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের ব্যাপারে কারাবিধি অনুযায়ী সব সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করেছে।

স্বাধীনতা পরিষদ নামের একটি সংগঠনের এই আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।

আরো পড়ুন…
নির্বাচন নিয়ে কারো সঙ্গে আলাপ-আলোচনা হতে পারে না: খাদ্যমন্ত্রী
‘নির্বাচন নিয়ে কারো সঙ্গে আলাপ-আলোচনা হতে পারে না’ বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। এসময় নির্বাচন নিয়ে যেকোনো ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকারও আহ্বান।

জাতীয় প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলার কনফারেন্স লাউঞ্জে ‘বাংলাদেশ ডিএইচএমএস ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ডা. মাহবুবুর রহমান স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময় বলেন, বিএনপির শান্তিপূর্ণ আন্দোলন যেকোনো মুহূর্তে বীভৎস রূপ ধারণ করতে পারে।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির আইনজীবীরা যথা সময়ে খালেদা জিয়ার রায়ের কপির জন্য আবেদন করেননি। এমনকি খালেদা জিয়ার ডিভিশনের ব্যাপারে তারা দুই দিন পরে আবেদন করেছেন। তাদের ডিলেটারির কারণেই খালেদার মুক্তিতে বিলম্ব হবে।’

বিএনপির নেতারাই খালেদা জিয়ার দীর্ঘ কারাবাস চায় এমন মন্তব্য করে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘বিএনপির আইনজীবীদের ডিলেটারির প্রাকটিসের কারণেই খালেদা জিয়াকে বেশিদিন কারাগারে থাকতে হচ্ছে।’

বাংলাদেশ ডিএইচএমএস ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. শেখ মোহাম্মদ ইফতেখার উদ্দিনের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আরো বক্তব্য দেন ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. দিলীপ কুমার রায় প্রমুখ।

Leave a Reply