বিউটি ধর্ষণ ও হত্যা ।। প্রধান আসামি বাবুল বিয়ানিবাজার থেকে গ্রেপ্তার

সিলেট বিভাগ

৩১ মার্চ ২০১৮, শনিবার ।। হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে ধর্ষণের পর মামলা করায় বিউটি আক্তারকে (১৬) ফের ধর্ষণ করে হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামি বাবুল মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। শুক্রবার গভীর রাতে বিয়ানিবাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ শনিবার দুপুরে এ বিষয়ে র‌্যাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সংস্থাটি।
গত ১৬ই মার্চ গণধর্ষণের পর হত্যা করে বিউটি আক্তারের লাশ হাওরে ফেলে যায় বাবুল ও তার সহযোগীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সে ছবি ছড়িয়ে পড়লে সারাদেশে আলোড়ন সৃষ্টি হয়। ১৮ই মার্চ কিশোরীর বাবা সায়েদ আলী বাদী হয়ে একই গ্রামের বাবুল মিয়া (৩২) ও তার মা ইউপি সদস্য কলম চান বিবিকে (৪৫) আসামি করে শায়েস্তাগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা করেন। এরপর অভিযান চালিয়ে কলম চান বিবিকে শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রীজ এবং বাবুলের বন্ধু ইসমাইল মিয়াকে অলিপুর থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মামলার এজহারে বলা হয়, স্থানীয় মোজাহের উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বিউটি আক্তারকে প্রায়ই উত্তক্ত করতো বাবুল মিয়া। এক পর্যায়ে তাকে প্রেমের প্রস্তাব দিলে তা প্রত্যাখ্যান করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২১শে জানুয়ারি বাবুল বিউটিকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় গত ৪ঠা মার্চ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে একটি মামলা করা হয়। মামলা করার কারণে আরো ক্ষিপ্ত হয় বাবুল। বিউটির পরিবার ভয়ে তাকে নানার বাড়ি রেখে আসে। পরে ১৬ই মার্চ রাত ১২টার দিকে টয়লেটে গিয়ে আর ঘরে ফিরেনি বিউটি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। পরদিন ১৭ই মার্চ গুনিপুর থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার দূরে হাওরে তার মরদেহ পাওয়া যায়।

Leave a Reply