আগামী নির্বাচনে আমাদের জিততে হবে : ওবায়দুল কাদের

রাজনীতি

নরসিংদী :  ‘এই নির্বাচনে আমাদের জিততে হবে, বিএনপিকে নিয়ে বিচলিত হওয়ার কারণ নেই’ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নরসিংদীর মোসলেহ উদ্দিন ভূঞা স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে দলটির নেতা সব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সফর উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগ এই জনসভার আয়োজন করে। এদিকে, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের জনসভায় যোগদান নিয়ে নরসিংদীর আরশিনগরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় দুই পক্ষের মধ্যে ব্যাপক ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। ইটপাটকেল ও গুলি বর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘এই নির্বাচনে আমাদের জিততে হবে। আমাদের বিকল্প হচ্ছে বিএনপির নেতৃত্বে সাম্প্রদায়িক জঙ্গিবাদী শক্তি। এই শক্তি যদি বিজয়ী হয় দেশ আবার অন্ধকারে যাবে। দেশ আবার সেই ভয়াবহ অমানিষার অন্ধকারে ডুবে যাবে। আবারও পেট্রোল বোমা, আবারও আগুন। আগুন দিয়ে মানুষ হত্যা, সেই বিভীষিকা দিন আসবে। আওয়ামী লীগের লাখ লাখ কর্মী সেই বিভীষিকার শিকার হয়ে ঘরবাড়ি ছেড়েছে। আমরা কেউ সেই বিভীষিকায় ফিরে যেতে চাই না।’

কাদের আরো বলেন, ‘খালেদা জিয়া জেলে গেলো। বিএনপি ভাবল এবার আন্দোলন হবে, মরা গাঙ্গে জোয়ার আসবে। নয় বছর ধরে আন্দোলনের ডাক শুনছি। এই মাস না ওই মাস, এই বছর না ওই বছর, দেখতে দেখতে ৯ বছর, আন্দোলন হবে কোন বছর। মরা গাঙ্গে জোয়ার আর আসে না।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি ক্ষমতায় আসার মানেই হচ্ছে আবারও দেশ দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হবে। আজ তারা আন্দোলন করে দুর্নীতির দণ্ড পাওয়া তাদের নেত্রীর জন্য। আজকে দুর্নীতির পথে তারা আন্দোলন করছে। এই দল ক্ষমতায় গেলে দুর্নীতি করবে। তারা গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বাদ দিয়েছে। এই ৭ ধারা ছিল কোন দণ্ডিত ও দুর্নীতিবাজ ব্যক্তি বিএনপির নেতা হতে পারবে না। কিন্তু তারা হঠাৎ খালেদা জিয়ার মামলার রায় হওয়ার ১০ দিন আগে ৭ ধারা গঠনতন্ত্র থেকে তুলে দিয়েছে। বিএনপি এখন আত্মস্বীকৃত দুর্নীতির দল। বিএনপি এখন আত্মস্বীকৃত দণ্ডিত দল, বিএনপি এখন আত্মস্বীকৃত উন্মাদের দল। কেউ দুর্নীতিবাজ হতে চাইলে বিএনপিতে যোগ দিন। দেওলিয়া হতে চাইলে বিএনপিতেত যোগ দিন।’

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম হিরুর সভাপতিত্বে জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, মুকুল বোস, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য ও নরসিংদী-৪ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, আখতারুজ্জামান, অ্যাডভোকেট এবিএম রিয়াজুল কবির কাওছার, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ।

এসময় সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মতিন ভূঞা, নরসিংদী-৩ আসনের সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, পলাশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. আনোয়ারুল আশরাফ খাঁন দিলীপ, নরসিংদী পৌরসভার মেয়র কামরুজ্জামান কামরুল, মাধবদী পৌরসভার মেয়র মোশাররফ হোসেন প্রধান মানিক, ঘোড়াশাল পৌরসভার মেয়র শরিফুল হক, শিবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সামসুল আলম ভূঞা রাখিল, মনোহরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফজলুল হক, সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াশীষ রায় ও মনোহরদী পৌরসভার মেয়র আমিনুর রশিদ সুজন প্রমুখ।

Leave a Reply