বিএনপির আন্দোলনের শক্তি নেই : কামরুল

রাজনীতি

খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘বিএনপির আন্দোলনের শক্তি নেই। তাই তারা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছে।’ আন্দোলনে শক্তি ক্ষয় না করে নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন খাদ্যমন্ত্রী। আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল জলিলের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ওই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গতকাল বেগম খালেদা জিয়া জামিন পেয়েছেন। এতেই প্রমাণিত হয় আদালতের ওপর সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই। বর্তমান সরকারের অধীনেই সাংবিধানিক নিয়ম অনুযায়ী অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সাংবিধানিক নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সরকার পরিচালনা করবেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকার সর্বোতভাবে নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা করবে। মন্ত্রী সতর্ক করে দিয়ে বলেন, কেউ নির্বাচনে আসবে কি আসবে না সেটা দেখার বিষয় আওয়ামী লীগের না। নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে।’

আলোচনাসভায় আরো বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, তালুকদার মো. ইউনুস, চিত্রনায়িকা নতুন।

নির্বাচন নিয়ে কারো সঙ্গে আলাপ-আলোচনা হতে পারে না : খাদ্যমন্ত্রী

‘নির্বাচন নিয়ে কারো সঙ্গে আলাপ-আলোচনা হতে পারে না’ বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। এসময় নির্বাচন নিয়ে যেকোনো ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকারও আহ্বান।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলার কনফারেন্স লাউঞ্জে ‘বাংলাদেশ ডিএইচএমএস ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ডা. মাহবুবুর রহমান স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময় বলেন, বিএনপির শান্তিপূর্ণ আন্দোলন যেকোনো মুহূর্তে বীভৎস রূপ ধারণ করতে পারে।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির আইনজীবীরা যথা সময়ে খালেদা জিয়ার রায়ের কপির জন্য আবেদন করেননি। এমনকি খালেদা জিয়ার ডিভিশনের ব্যাপারে তারা দুই দিন পরে আবেদন করেছেন। তাদের ডিলেটারির কারণেই খালেদার মুক্তিতে বিলম্ব হবে।’

বিএনপির নেতারাই খালেদা জিয়ার দীর্ঘ কারাবাস চায় এমন মন্তব্য করে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘বিএনপির আইনজীবীদের ডিলেটারির প্রাকটিসের কারণেই খালেদা জিয়াকে বেশিদিন কারাগারে থাকতে হচ্ছে।’

বাংলাদেশ ডিএইচএমএস ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. শেখ মোহাম্মদ ইফতেখার উদ্দিনের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আরো বক্তব্য দেন ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. দিলীপ কুমার রায় প্রমুখ।

দুর্নীতিবাজদের প্রত্যাখ্যান করুন: খাদ্যমন্ত্রী কামরুল
দুর্নীতিবাজদের প্রত্যাখ্যান এবং জঙ্গিবাদকে না বলতে নতুন প্রজন্মের প্রতি আহবান জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘যে জাতি তার জন্মের ইতিহাস জানে না, সে জাতি বেশি দূর অগ্রসর হতে পারে না। তাই নতুন প্রজন্মের সামনে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে হবে। তাদেরকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মূল্যবোধ ধারন করতে হবে।’

খাদ্যমন্ত্রী মঙ্গলবার কেরাণীগঞ্জ গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তৃতা করছিলেন। খবর বাসসের।

তিনি বলেন, বিগত সরকারগুলো নতুন প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস জানতে দেয়নি। তারা ইতিহাস বিকৃত করে মিথ্যা ও মুক্তিযুদ্ধের খন্ডচিত্র দেশবাসীর কাছে তুলে ধরেছে। কিন্তু কোমলমতি শিক্ষার্থীরা যাতে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারে বর্তমান সরকার সেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

কামরুল ইসলাম বলেন, এ দেশের মানুষ কোনো দিন আর মুক্তিযুদ্ধবিরোধী আগুন সন্ত্রাসীদের হাতে ক্ষমতা তুলে দিবে না। এ সরকারের উন্নয়নের সুফল দেশের মানুষ পেতে শুরু করেছে।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি এম এ হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন কেরাণীগঞ্জ গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা মহসীন মন্টু, দাতা সদস্য মো. মোক্তার হোসেন, সদস্য মো. আমির হোসেন, প্রতিষ্ঠান প্রধান অনিতা সরকার, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইউসুফ আলী চৌধুরী সেলিম ও এডভোকেট এনামুল হক।

Leave a Reply