‘মানবতাবিরোধী’ মামলায় খালেদা জিয়ার প্রতিবেদন জমার নতুন দিন

রাজনীতি

মানবতাবিরোধী অপরাধীদের মদদ দেওয়ার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নতুন দিন ধার্য করেছেন আদালত। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি এই প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

রবিবার ঢাকার মহানগর হাকিম নূর নবী এই দিন ধার্য করেন।

মামলার বাদী এবি সিদ্দিকী সাংবাদিকদের জানান, এই মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য রবিবার দিন ধার্য ছিল। কিন্তু পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল না করায় বিচারক নতুন করে দিন ধার্য করেন।

স্বীকৃত স্বাধীনতাবিরোধীদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা তুলে দিয়ে দেশের মানচিত্র এবং জাতীয় পতাকার মানহানি ঘটানোর অভিযোগে ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে একটি মানহানির মামলা করেন।

ওই দিন ঢাকা মহানগর হাকিম রায়হানুল ইসলাম তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) মামলা তদন্তের নির্দেশ দেন। মামলায় খালেদা জিয়া এবং তাঁর স্বামী, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকেও আসামি করা হয়। তদন্ত শেষে চলতি বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি তেজগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এ বি এম মশিউর রহমান মামলার প্রতিবেদন দাখিল করেন।

পরে ২০১৭ সালের ১২ অক্টোবর ঢাকার মহানগর হাকিম গোলাম নবী বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপস্থিতিতে অসমাপ্ত যুক্তিতর্ক উপস্থাপন চলছে।

এছাড়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন চলছে। খালেদা জিয়ার পক্ষে তার আইনজীবী ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করছেন।

গত বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন গুলশানের বাসভবন ফিরোজা থেকে রওনা হয়ে বেলা ১১টার দিকে বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতে পৌঁছান।

বুধবার শুনানি শেষে বিচারক বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান বৃহস্পতিবার পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করেছেন।

এর আগে আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক তুলে ধরেন। এ সময় তিনি জাল, মিথ্যা নথি উপস্থাপনের অভিযোগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৩০ সাক্ষীর শাস্তি দাবি করেন।

এ জে মোহাম্মদ আলীর বক্তব্য শেষে খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করার জন্য আদালতে দাঁড়ান ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার। তার পরই আদালত মুলতবি করা হয়। আগামীকাল বৃহস্পতিবার তিনি ফের যুক্তিতর্ক তুলে ধরবেন।

এ মামলায় এর আগে ৪ জানুয়ারি নিজের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় অপর একটি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মামলায় খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান ছাড়া বাকি আসামিরা হলেন মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

Leave a Reply