পঞ্চম-অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশ ও বই উৎসব উদ্বোধন

জাতীয়

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী এবং জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। সেই সাথে ২০১৮ সালের বই উৎসবের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শনিবার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে এই ফলাফল ঘোষণা ও বই উৎসবের উদ্বোধন করেন। এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বিক ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এজন্য তিনি সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

প্রাথমিকের পাশের হার ৯৫.১৮। যা গতবার ছিল ৯৮.৫১ শতাংশ।  আর ইবতেদায়ীতে পাস করেছে ৯২ দশমিক ৯৪ শতাংশ পরীক্ষার্থী। গতবার ছিল ৯৫.৮৫ শতাংশ।

এছাড়া প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৬২৬০৯ জন। গতবার এই সংখ্যাটি ছিল দুই লাখ ৮১ হাজার ৮৯৮ জন। আর ইবতেদায়ীতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫০২৩ জন।

অন্য দিকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এবার পাসের হার ৮৩.৬৫ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৯১ হাজার ৬২৮ জন পরীক্ষার্থী।

ফলাফলে দেখা গেছে, জেএসসিতে পাসের হার ৮৩.১০ শতাংশ আর জেডিসিতে পাসের হার ৮৬.৮০ শতাংশ। জেএসসি ও জেডিসিতে মোট পাস করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা বিশ লাখ ১৮ হাজার ২৭১ জন।

দুই পরীক্ষায় মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে এক লাখ ৯১ হাজার ৬২৮ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে জেএসসিতে এক লাখ ৮৪ হাজার ৩৯৭ জন। জেডিসিতে সাত হাজার ২৩১ জন।

জেএসসিতে মোট পাস করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৭ লাখ ৭ হাজার ২৪ জন, জেডিসিতে পাসের সংখ্যা ৩ লাখ ১১ হাজার ২৪৭ জন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। পরে সচিবালয়ে বেলা একটায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী এবং বেলা দুইটায় শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত ফল প্রকাশ করবেন।

যেভাবে জানা যাবে ফল: প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি শিক্ষা ফল www.dpe.gov.bd এবং http://dperesults.teletalk.com.bd থেকে পাওয়া যাবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া যেকোনো মোবাইল থেকে DPE লিখে স্পেস দিয়ে শিক্ষার্থীর আইডি লিখে স্পেস দিয়ে বর্ষ লিখে ফল পাওয়া যাবে।

আর ইবতেদায়ি শিক্ষার ফলাফলের জন্য EBT স্পেস শিক্ষার্থীর আইডি নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে বর্ষ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস করলে ফল আসবে।

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার ফল পাওয়া যাবে www.educationboardresults.gov.bd ছাড়াও শিক্ষাবোর্ডগুলোর ওয়েবসাইটে।

মোবাইলের মেসেজ অপশনে JSC/JDC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ড লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৭ লিখে এসএমএস করলেও ফল পাওয়া যাবে।

আগামী ১ জানুয়ারি সোমবার সারাদেশে ‘জাতীয় পাঠ্যপুস্তক উৎসব’ উদযাপন করা হবে। এই শিক্ষাবর্ষে ১০,৭০,৯৬৬ জন শিক্ষার্থী বেড়ে যাওয়ার ফলে অতিরিক্ত ৭১,৯৩,৩৬৯টি পাঠ্যবই মুদ্রণ করা হয়েছে।

গত ১ নভেম্বর জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। শেষ হয় ১৮ নভেম্বর। এই দুই পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল প্রায় ২৪ লাখ ৬৯ হাজার। অন্যদিকে ১৯ থেকে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রায় ৩১ লাখ পরীক্ষার্থী অংশ নেয়।

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা ১৯ নভেম্বর শুরু হয় । বেলা ১১টায় উভয় স্তরে ইংরেজি বিষয়ের মাধ্যমে ছোটদের এ বড় পরীক্ষা শুরু হয়।

এক উপজেলার উত্তরপত্র অন্য জেলার মাধ্যমে আরেক উপজেলায় বণ্টন করা হয়। এবার প্রথমবারের মতো টেবুলেশন কার্যক্রমও যেই উপজেলা খাতা দেখে সেখানে করার নিয়ম জারি করা হয়।

এবার পরীক্ষায় ৩০ লাখ ৯৬ হাজার ৭৬ ছাত্রছাত্রী অংশ নিচ্ছে। এদের মধ্যে প্রাথমিকে পরীক্ষার্থী ২৮ লাখ ৪ হাজার ৫০৯ ও ইবতেদায়িতে ২ লাখ ৯১ হাজার ৫৬৬ জন। উভয় পরীক্ষায় গত বছরের তুলনায় এবার ১ লাখ ৩৬ হাজার পরীক্ষার্থী কমেছে।

প্রাথমিকে মোট পরীক্ষার্থীর ১২ লাখ ৯৯ হাজার ৯৮৫ জন ছাত্র এবং ১৫ লাখ ৪ হাজার ৫২৪ জন ছাত্রী। গত বছরের তুলনায় ১ লাখ ২৬ হাজার ৬৪ জন শিক্ষার্থী কমে গেছে। অপরদিকে ইবতেদায়িতে ছাত্র ১ লাখ ৫৩ হাজার ১৫২ ও ছাত্রী ১ লাখ ৩৮ হাজার ৪১৪ জন।

ইবতেদায়িতে কমেছে ৮ হাজার ১৪৯ জন। সারা দেশে মোট ৭ হাজার ২৭৯ কেন্দ্রে একযোগে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া দেশের বাইরে ১২টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply