তারেক রহমানের জন্মদিনে কেক কাটলো সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদল(ভিডিও)

সিলেট বিভাগ

সোমবার (২০ নভেম্বর) বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩ তম জন্মদিন।  এ উপলক্ষে রোববার দিবাগত রাত (১৯ নভেম্বর) রাত ১২টা ১ মিনিটে কেক কেটে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩ তম জন্মদিন উদযাপন করলো সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদল। সিলেট জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুনের নেতৃতে ওইদিন রাতে সিলেট নগরীর আগ্রা কমিউনিটি সেন্টারে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদল। এসময় জেলা ও উপজেলা যুবদলের বিপুল সংখ্যাক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের পক্ষে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে সুস্বাস্থ্য ও সামগ্রিক কল্যাণ কামনা করেন নেতৃবৃন্দ।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম বলেন বিদেশী বিভিন্ন জরিপে দেখা গেছে, সরকার সুপরিকল্পিতভাবে তারেক রহমানের চরিত্রহরণের প্রচারণা চালাচ্ছে। তারপরও তরুণ সমাজের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা তারেক রহমান। সরকার তার বিরুদ্ধে একটি অভিযোগও প্রমাণ করতে পারেনি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় বিএনপির সিনিয়র সদস্য ডাঃ শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব বিরোধী অপশক্তিই তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব যারা খর্ব করতে চায় এবং অগ্রগতিকে বাধাগ্রস্ত করতে চায় সেই অপশক্তিই তারেক রহমানের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আধিপত্যবাদী শক্তি ও তাদের এদেশীয় দোসররা তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে তার ভাবমূর্তি বিনষ্ট করতে চেয়েছিল। কিন্তু আদালতের রায়ে প্রমাণ হয়েছে তারেক রহমান নির্দোষ।

সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন বলেন, সরকার তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ এনে অপপ্রচার চালিয়েছিল। সরকারের প্রচারণা আদালতের রায়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ছিল বলে প্রমাণিত হয়েছে। তিনি বলেন, তারেক রহমানসহ জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে করা সবকটি মামলাই মিথ্যা। পরিবারের সুনাম নষ্ট করতে মামলাগুলো করা হয়েছে। অর্থ পাচারের মামলায় তারেক রহমান বেকসুর খালাস পেয়েছেন। আশা করছি বাকী মামলাগুলোতে খালাস পেয়ে নির্দোষ হিসেবে তারেক রহমান জনগণের সামনে ফিরে আসবেন।

সিলেট মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোঃ বদরুজ্জামান সেলিম বলেন সকল পাড়া মহল্লায় যুবদলের কমিটি গঠন করতে হবে। যুবদলকে সারাদেশে সংগঠিত করে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। মনে রাখতে হবে এবারের আন্দোলন বাঁচামরা ও অস্তিত্ব রক্ষার আন্দোলন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, ইশতিয়াক আহমেদ সিদ্দিকী ।
এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুন, জেলা ও মহানগর যুবদল নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আব্দুল আজিজ, নিজাম ইউ জায়গীরদার, শামীম মজুমদার, আব্দুল মালেক,হাবিবুর রহমান হাবিব, মুস্তাক আহমদ, ছালিক আহমদ চৌধুরী, ছাব্বির আহমদ, আব্দুল খালিক,সোহেল মাহমুদ, সাহিদ আহমদ শাহীন, ফারুক আহমদ, সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, আমিন ইউ আহমদ, শরীফ উদ্দিন মেহেদী,সাইদুর রহমান সাঈদ, মইনুল ইসলাম মঞ্জু, আব্দুস সোবহান, শফিক নূর, সাহেদ আহমদ, কামাল আহমদ, মকসুদুল করিম নুহেল, সালাউদ্দিন, আব্দুর রকিব মুস্তাক, মাসুদ আলী মাছুম,শাহীন আলী, মইন উদ্দিন, সোলেমান আহমদ সিদ্দিকী,  আব্দুল মুকিত সুমেল, এড. আব্দুল্লাহ আল হেলাল, গিয়াস আহমদ,  ফরহাদ তুহিন, শাহাজান আহমদ জুয়েল, এনামুল ইসলাম লায়েছ,নাজমুল হোসেন, আসাদুজ্জামান আসাদ,নজরুল ইসলাম,মহব্বত আলী, এটি এম ফয়েজ, আব্দুস সাহিদ, রুহুল আমীন,হাবিবুর রহমান,শামীম আহমদ, আলম আহমদ, মাছুম আহমদ লশকর, মুন্না আহমদ, ইয়াসিন আলী, হেলাল আহমদ, শাহজান আহমদ খোকা, খালেদ আহমদ, সাইদুর রহমান,ইউসুফ আলী, সিদ্দিকুর রহমান রুহেল, আব্দুর রহমান, তমিজুল ইসলাম, শিপন চন্দ, রুস্তুম আলী, আসিক আহমদ, জসীম উদ্দিন,আব্দুল মন্নান প্রমূখ।

ভিডিও

Leave a Reply