এদেশে ভোটারবিহীন নির্বাচন করতে দেওয়া হবে না : রিজভী

রাজনীতি

খুলনা : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, ৫ জানুয়ারির মত এদেশে আর কোনো ভোটারবিহীন নির্বাচন করতে দেওয়া হবে না।

শনিবার দুপুরে নগরীর একটি ক্লাবে দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষে খুলনা জেলা বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

রুহুল কবীর রিজভী বলেন, শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে ভোট আগের রাত ৩টার মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে। ক্ষমতাসীনরা সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে নুরুল হুদাকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ করেছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী সরকার নিরপেক্ষ নির্বাচনকে ভয় পায় বলেই তারা আবারো ভোটারবিহীন নির্বাচনের পায়তারা করছে। কিন্তু বিএনপির নেতাকর্মীরা এবার তাদের সে বাসনা পূরণ হতে দেবে না।

উক্ত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন দলের খুলনা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত ও জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু।

এসময়ে সভায় বক্তৃতা করেন সাবেক সংসদ সদস্য শেখ মুজিবর, রবিউল ইসলাম রবি, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমির এজাজ খান, খান জুলফিকার আলী জুলু, মনিরুজ্জামান মন্টু, খান আলী মনসুর, শেখ আবদুর রশিদ, চৌধুরী কাওসার আলী, আবু হোসেন বাবু, জিএম কামরুজ্জামান টুকু, মোল্লা মফিজুর রহমান, অ্যাড. মোমরেজুল ইসলাম, শামীম কবীর প্রমুখ।

শিক্ষক-ব্যাংকারদের হুমকি দিয়ে সমাবেশে আসতে বাধ্য করা হয়েছে: ফখরুল
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেছেন, স্কুল-কলেজে চিঠি দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের নাগরিক সমাবেশে যোগ দিতে বাধ্য করেছে সরকার।

তিনি আরো বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নাগরিক সমাবেশের নামে রাজনৈতিক সমাবেশ করছে আওয়ামী লীগ। স্কুল-কলেজের শিক্ষক ও ব্যাংকারদের চাকরি হারানোর হুমকি দিয়ে এই সমাবেশে আসতে বাধ্য করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) ‘ভাসানী স্মৃতি সংসদ’ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় ফখরুল এই অভিযোগ করেন।

তিনি আরো বলেন, তোষামোদি না করে আগামী নির্বাচনের জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড (সমান ক্ষেত্র) তৈরি করতে হবে নির্বাচন কমিশনকেই (ইসি)।

মির্জা ফখরুল বলেন, আগামী নির্বাচন সব দলের অংশগ্রহণ দেখতে চায় মানুষ। নিরপেক্ষ-নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচন হলেই এমনটি সম্ভব হবে।

Leave a Reply