টেক্সাসে গির্জায় বন্দুকধারীর গুলিতে ২৬ জন নিহত

আন্তর্জাতিক

ওয়াশিংটন : টেক্সাসের গভর্ণর গ্রেগ অ্যাবট নিশ্চিত করেছেন যে গির্জায় বন্দকধারীর গুলিতে ২৬ জন নিহত হয়েছে। উইলসন কাউন্টির সাদারল্যান্ড স্প্রিং শহরের ফার্স্ট ব্যাপ্টিস্ট চার্চে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পরপরই উইলসন কাউন্টি কমিশনার আলবার্ঠ গামেয জুনিয়র প্রথমে ২৭ জনের নিহত হওয়ার খবর সিবিএস নিউজকে জানিয়েছিলেন। তারপর ২০ জন নিহত হওয়ার খবর জানায় পুলিশ। খবর বিবিসির।

তবে সর্বশেষ গভর্নর অ্যাবট সংবাদ সম্মেলনে ২৬ জনের নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করে বলেছেন, ওই অঙ্গরাজ্যের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ হামলার ঘটনা এটি।

এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো প্রায় ২৫ জন। ঘটনার পরপরই হামলাকারীও নিহত হয়েছে, তবে পুলিশের গুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে নাকি সে আত্মঘাতী হয়েছে তা নিশ্চিত নয়। স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে সন্দেহভাজন হামলাকারী চার্চে ঢুকে গুলি ছুড়তে শুরু করে ।

সে বছর কুড়ি বয়সের একজন শ্বেতাঙ্গ তরুণএবং তার পরনে কালো রংএর পোশাক ছিল। এমই বর্ণনা দেন টেক্সাসের পাবলিক সেফটি ডিপার্টমেন্টএর মুখপাত্র। হামলাকারী গুলিবর্ষণ শুরু করলে তার হাত থেকে একজন স্থানীয় ব্যক্তি রাইফেল কেড়ে নেয় এবং তার দিকে গুলি ছোড়ে। এরপর বন্দুকধারী একটি গাড়িতে চড়ে পালিয়ে যেতে উদ্যত হয়। পুলিশ তাকে গাড়ির ভেতর মৃত অবস্থায় পায়।

এফবিআইর কর্মকর্তারা বলছেন, এখনো পর্যন্ত হামলাকারীর উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানা যায়নি। ক্যারি মাতুলা নামে একজন প্রত্যক্ষদর্শী এনবিসি নিউজকে বলেন, ‘আমরা সেমি-অটোমেটিক বন্দুকের গুলির শব্দ শুনতে পেয়েছি। আমরা চার্চটি থেকে ৫০ গজ দূরে ছিলাম।’

হামলার ঘটনার পরপরই এশিয়া সফররত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে লিখেছেন, এফবিআই এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ঘটনাস্থলে রয়েছে। তিনি জাপান থেকে পরিস্থিতির খবরাখবর রাখছেন।

লাস ভেগাসে বন্দুকধারীর হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫৮
এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাস শহরে একটি কনসার্টে বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫৮ জনে দাঁড়িছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৫০০ জনেরও বেশি লোক।

স্থানীয় সময় রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহরে ম্যানডালে বে হোটেলে অনুষ্ঠিত কনসার্টে এক বন্দুকধারী এ হামলা চালায়। খবর এনবিসি নিউজের।

নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আহতদের মধ্যে অনেকের অবস্থাই গুরুতর, তাদের স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়েছে, চলছে চিকিৎসা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তারা একটানা গুলির শব্দ শুনেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, স্বয়ংক্রিয় আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে কনসার্টে অংশগ্রহণকারীদের ওপর গুলি চালায় হামলাকারী।

ঘটনাস্থল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিওতেও একাধারে গুলির শব্দ শোনা গেছে।

হামলায় নিহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন পুলিশ অফিসারও রয়েছেন বলে জানিয়েছেন লাস ভেগাস পুলিশের শেরিফ জো লমবার্দো।

মান্দালয় বে হোটেলের ৩২ তলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে হামলাকারী নিহত হয় উল্লেখ করে শেরিফ লমবার্দো জানান, লাস ভেগাসের স্থানীয় বাসিন্দা ওই বন্দুকধারী একাই এ হামলা চালায়। তবে হামলাকারীর সহযোগী এক নারীকে খুঁজছে পুলিশ।

এদিকে ঘটনার পরপরই সাংবাদিকদের কাছে প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনায় ফুটে ওঠে হামলার ভয়াবহতা।

সিএনএন এর কাছে এক প্রত্যক্ষদর্শী ঘটনার ভয়াবহতা বর্ণনা করে জানান, কনসার্টে সবাই যখন উন্মাতাল হইহুল্লোড়ে মত্ত, ঠিক এ সময় একটানা গুলির শব্দে কনসার্টে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে হুড়োহুড়ি শুরু হয়। জীবন বাঁচাতে যে যেভাবে পারে সবাই নিরাপদ আশ্রয়ে ছুটতে থাকে।

টিভিতে দেখানো সরাসরি ফুটেজে দেখা যাচ্ছে লাস ভেগাস স্ট্রিপে ভারী অস্ত্রসহ পুলিশ অবস্থান করছে। পুলিশ ঐ এলাকা এড়িয়ে চলার নির্দেশ দিয়েছে।

Leave a Reply