১৬ থেকে ১৮ অক্টোবর তিনদিন সারা দেশে ইন্টারনেটের গতি কম থাকবে

বিজ্ঞান প্রযুক্তি

আগামী ১৬ থেকে ১৮ অক্টোবর তিনদিন সারা দেশে ইন্টারনেটের গতি কম থাকতে পারে। মেরামতের জন্য বাংলাদেশের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল বা সাউথ ইস্ট এশিয়া-মিডল ইস্ট-ওয়েস্টার্ন ইউরোপ-৪ (এসইএ-এমই-ডব্লিউই-৪) বন্ধ থাকার কারণে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী সাময়িক ধীরগতির মুখোমুখি হতে পারে।

এ বিষয়ে সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ৬ অক্টোবর দেশের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল মেরামতের কথা থাকলেও প্রস্তুতিজনিত কারণে সেটি হয়নি। নতুন সূচি অনুযায়ী মেরামত কাজ হবে ১৬ থেকে ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত। এর ফলে ওই সময় গ্রাহক ধীরগতির ইন্টারনেট সেবা পেতে পারেন।

তবে দ্বিতীয় সাব মেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থা সচল রাখার সর্বাত্মক উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি।

গত ১২ বছরের মধ্যে এই প্রথম ক্যাবলটি শার্ট ডাইন হচ্ছে জানিয়ে বিএসসিসিএল এমডি মনোয়ার হোসেন আরও বলেন, ‘এর ফলে দেশের ইন্টারনেট ব্যবস্থাপনায় স্বল্প সময়ের জন্য একটি বড় রকমের ধাক্কা লাগতে পারে। ইতোমধ্যে দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল চালু হলেও এ পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যাবে না।’

জানা গেছে, বর্তমানে প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল ২৫০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করে। দ্বিতীয় ক্যাবলের ক্ষমতা ১৫০০ জিবিপিএস হলেও মাত্র ২০০ জিবিপিএসই ব্যবহার করা যাচ্ছে। ফলে প্রথম ক্যাবল বন্ধ হলে ৫০ জিবিপিএস’র ঘাটতি থেকেই যাবে।

বিএসসিসিএল’র কর্মকর্তারা বলছেন, তারা বিকল্প ব্যবস্থাপনায় ব্যান্ডউইথ নেওয়ার চেষ্টা করছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেটির বন্দোবস্ত করা সম্ভব হয়নি। অন্যদিকে নিজেদের দ্বিতীয় ক্যাবল থেকে ব্যান্ডউইথ আনা হয়তো সম্ভব হবে। কিন্তু বেসরকারি কোম্পানিগুলো বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানির (বিটিসিএল) ওপর আস্থা রাখতে পারছে না। ফলে তারা দ্বিতীয় ক্যাবলের সেবার ওপরও আস্থা রাখছে না বলে জানান বিএসসিসিএল এমডি।

দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলের ব্যান্ডইউথ ঢাকায় আনার একমাত্র উপায় হল বিটিসিএলের সংযোগ। তবে এ সংযোগ বারবার বন্ধ হচ্ছে। আর সে কারণে নতুন ক্যাবলের ওপর আস্থা রাখা কঠিন হয়ে পড়বে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply