যশোরের জঙ্গি আস্তানা থেকে ৩ শিশুসহ খাদিজার আত্মসমর্পণ

সারাদেশ

যশোর : জেলার ঘোপ নওয়াপাড়া রোডে জামে মসজিদের পেছনের একটি চারতলা বাড়ি থেকে তিন শিশুসহ আত্মসমর্পণ করেছেন জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজা। সোমবার ৩টা ৫ মিনিটে তিনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন।

আত্মসমর্পণের সময় খাদিজার সঙ্গে ছিল দুই মেয়ে ও এক ছেলে। আত্মসমর্পণ করার আগে খাদজিা তার পরিবারের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন।

এরআগে বেলা সোয়া ১১টা দিকে যশোরের পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান হাত মাইকে খাদিজা ও তার পরিবারের সদস্যদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানান।

তিনি মাইকে বলেন, খাদিজা আপনি বেরিয়ে আসুন। আপনার সঙ্গে আমরা কথা বলতে চাই। আপনার সঙ্গে শিশুরাও রয়েছে। তাদের কথা চিন্তা করে আপনি বেরিয়ে আসুন, আমরা কথা বলব। আপনি আত্মসমর্পণ করেন। আমরা আপনার সকল সহযোগিতা করব। তবে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত পুলিশ সুপারের আহ্বানে সাড়া দেয়নি জঙ্গিরা।

এদিকে যশোরের ঘোপ নোয়াপাড়া রোড জামে মসজিদের পেছনে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা দোতলা বাড়িটিতে তল্লাশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের।

 ৩ শিশুসহ খাদিজার আত্মসমর্পণঘটনাস্থলে ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বলেন, ওই বাড়িতে ৫টি পরিবার ছিল। তাদের নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। বাড়িটির দ্বিতীয় তলায় জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজা রয়েছে। তার সঙ্গে একাধিক শিশু রয়েছে বলে নিশ্চিত হয়েছি। আমরা আত্মসমর্পণের আহ্বান জানিয়েছি।

কুষ্টিয়ার মশিউর রহমান নামের এক ব্যক্তি নিজেকে হারবাল কোম্পানির চাকরিজীবী পরিচয়ে ফ্লাটটি ভাড়া নিয়েছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, মশিউর হলি আর্টিসানে জঙ্গি হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী মারজানের বোন খাদিজার স্বামী।

উল্লেখ্য, শহরের ঘোপ নওয়াপাড়া রোড এলাকার ওই বাড়িটি রবিবার মধ্যরাত থেকে ঘিরে রাখা হয়েছে। সোয়াটের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এ পদক্ষেপ নিয়েছে।

Leave a Reply