ঢাকেশ্বরী মন্দিরে লক্ষ্মীপূজায় অংশ নিয়েছেন সুরেন্দ্র কুমার সিনহা

জাতীয়

লক্ষ্মীপূজায় অংশ নিতে পুরান ঢাকায় ঢাকেশ্বরী মন্দিরে সস্ত্রীক যান এক মাসের ছুটিতে থাকা প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তিনি মন্দিরে গিয়ে পূজা করেন।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাপস কুমার পাল বলেন, ঢাকেশ্বরী মন্দিরে প্রায় ২০ মিনিটের মতো অবস্থান করেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন কমিটির দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব কুমার দে বলেন, প্রধান বিচারপতির আসার বিষয়টি পূর্বনির্ধারিত ছিল না। তিনি এসেছিলেন লক্ষ্মীপূজা উপলক্ষে। এ সময় মন্দিরে পূজা উদ্‌যাপন কমিটির তেমন কোনো নেতৃস্থানীয় ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন না। যারা উপস্থিত ছিলেন, তাদের সঙ্গে প্রধান বিচারপতির তেমন কোনো কথাও হয়নি।

অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত জানিয়েছেন, ‘সন্ধ্যা ৬টায় এসে প্রধান বিচারপতি মন্দিরের বিশ্রামাগারে যান। এ সময় ওনার সঙ্গে হাই হ্যালো হয়। কিন্তু ছুটির বিষয়ে তিনি কিছুই বলেননি। আমরাও জিজ্ঞাসা করিনি। তবে ওনাকে দেখে আগের মতো স্বাভাবিক মনে হয়েছে। তিনি অসুস্থ কি না বোঝা যায়নি।’

 এর আগে বিকেলে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। ৩৫ মিনিটব্যাপী সাক্ষাৎ শেষে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘তার শরীরের খোঁজখবর নেওয়ার জন্য বাসভবনে গিয়েছি। প্রধান বিচারপতি বিশ্রাম নিচ্ছেন। তার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে কথা হয়েছে। তিনি দেশবাসীর কাছে তার জন্য দোয়া চেয়েছেন।’

সরকার বলছে, কারো অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি করা ঠিক নয়। অন্যদিকে বিএনপি বলছে, প্রধান বিচারপতিকে জোর করে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ দাবি করেছেন, প্রধান বিচারপতিকে গৃহবন্দী করে রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার ব্যক্তিগত অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে এক মাসের ছুটিতে যান প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। পরে ৩ অক্টোবর সকাল ৯টা ১০ মিনিটে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর ওই দিন দুপুর সোয়া ২টায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের পূর্ণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

  •  
  •  

Leave a Reply